E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

মালিপাখির একগুচ্ছ ছড়া-কবিতা

২০১৮ জুন ১৪ ১৩:১৯:০২
মালিপাখির একগুচ্ছ ছড়া-কবিতা







 

ভুতুমের জন্য কবিতা

আঁধার দিয়ে ভুতুম একা মনের ছবি আঁকে ।
কেউকি আছো হৃদয় দিয়ে ডাকবে কাছে তাকে ??

ধাঁধায় মোড়া আলোর শহর , ভুতুম থাকে দুরে ।
গাঁয়ের ছেলে ভুতুম , গাঁটি নাচ করে মন জুড়ে ।

মায়ের কথা সারাটা দিন কেবল মনে পড়ে ।
নিজের গাঁয়ে ফিরবে ভুতুম একটি বছর পরে ।

দোকানে কাজ করে ভুতুম , এই শহরে থাকে ।
নামলে আঁধার শালিক ডাঙায় একশো ঝিঁঝিঁ ডাকে ।

মিট মিটিয়ে জ্বলতে থাকে বাবলা গাছে তারা ।
ভুতুম থাকে আশায় বুকে দোলে গোলাপ চারা ।

শালিক ডাঙার কাঙাল ভুতুম চায়না এমন কিছু ।
ভালোবাসার আকাশটা হোক একটু খানি নিচু ।

আঁধার দিয়ে ভুতুম একা মনের ছবি আঁকে ।
কেউকি আছো হৃদয় দিয়ে ডাকবে কাছে তাকে ?

মিল

আপন মনে চলতে চলতে খুব শেয়ালের রাগ হলো !
দুই হাতে দুই তালি দিতেই বেড়ালটা ফের বাঘ হলো !!

আঁকতে আঁকতে খাতার পাতায় নদীর দুটি কুল হলো !
দুলতে দুলতে আবার দেখি গাছটি ভরে ফুল হলো !!

চুপকথাদের ঘুম ভেঙে আজ রূপকথার এক দেশ হলো !
দেখতে দেখতে কেবল ভাবি এইতো ও মন বেশ হলো !!

মন পাখিটা উড়তে উড়তে হুট্‌ করে যেই চাঁদ হলো !
মা হারানো পথ কুড়ুনীর বাঁচতে আবার সাধ হলো !!

একটি ছোটো ধানের গোলা , পাতায় ছাওয়া ঘর হলো !
উদাস হাওয়ার পাল তোলা মেঘ প্রনাম দিতেই গড় হলো !!

ভাবতে ভাবতে আকাশটা ফের আগের মতই নীল হলো !
সবাই জানে সেই কারনেই এই লেখাটির মিল হলো !!

দাও বাড়িয়েই 'রূপকথা হাত'

একটি নদী , সাতটি সাঁকো , খুঁজছে শুধুই নামকি তাহার !
অরূপ রূপের ঢেউ ছড়িয়েই হাসছে নেশায় চুমকি পাহাড় !

শালতি চালায় লোকটা কে ভাই ? জ্বলছে প্রদীপ আরশি কাঁচের !
তাইকি অলীক চাঁদের আলোয় মনটা আকাশ মেঘনা নাচের -- !

নাচছে ভুবন , নাচছে পারুল , শিউলি পুরের ওইযে কুটুম -- !
আপন মনেই বলছে তুমি একলা কোথায় আজকে ভুতুম ?

চরকি হরিণ বলছে এখন এইযে হৃদয় দুলছে আবার --- !
দাও বাড়িয়েই 'রূপকথা হাত' সাতটি সাঁকোর সামনে যাবার !

যেই এঁকেছি

যেই এঁকেছি আয় লেখাপুর , সাতটি মাটির বাড়ি ।
অমনি রাখাল বাজায় বাঁশি --- পথ ছড়াতে পারি ।

যেই এঁকেছি ধানের গোলা , বুলবুলি , বক ফিঙে ।
অমনি ভাবের একতারা ফুল বসলো গরুর শিঙে ।

যেই এঁকেছি পাহাড় চূড়ো , আকুম বাকুম ঘুড়ি ।
অমনি সে এক জলছবি দেশ মন করে নেয় চুরি ।

যেই এঁকেছি 'দেবদারু মন' 'মেষ পালকের স্মৃতি' ।
অমনি আকাশ দেয় সাজিয়ে মেঘনা মেঘের চিঠি ।

যেই এঁকেছি পাতার সাঁকো , যেই এঁকেছি তোকে ।
অমনি খুশির ডুগডুগি ভোর সুখ বুনে দেয় চোখে ।

যেই বলেছি

যেই বলেছি একতারা আয় নাম লিখি তোর খাতায় --- !
অমনি নাচে টুনটুনি রোদ বেলকুঁড়ি ঝাউ পাতায় !!

যেই বলেছি এই পুঁতি বোন নাকছাবি দ্বীপ কোথায় ?
অমনি আতর মেঘবালিকা ফুল গুলো সব ফোটায় !!

যেই বলেছি রূপকথা হাঁস আয় রাঙা পথ বানাই !
অমনি বাজে রাজার পোষাক , রূপনগরের সানাই !!

যেই বলেছি কোন মায়াতে দিন গুলো রোজ ফুরোয় ?
অমনি সাগর গান ঢেলে দেয় তিন পাহাড়ের চূড়োয় !!

যেই বলেছি আজ তারাঢেউ আয় আমাদের পাড়ায় !
অমনি আকাশ ভালোবাসার নীল দুটি হাত বাড়ায় !!

ঘোড়া বটে

টাকে টুপি পায়ে জুতো
দ্যাখো কত ঠাট তার !
আমি বটে বোকা ভুতো
মানি শত ষাট বার !!

ঘোড়া শালে চিঁহিঁ স্বরে
খাঁটি ঘোড়া পাটনাই !
ঢেরি পিটে বলে ঘরে
কেন মোড়া খাট নাই ??

পাঠকের মতামত:

২০ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test