E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

ফিরছে কোটি টাকা প্রাইজমানির সুপার কাপ

২০২৩ ফেব্রুয়ারি ০৬ ২৩:৩০:০৯
ফিরছে কোটি টাকা প্রাইজমানির সুপার কাপ

স্পোর্টস ডেস্ক : দশ বছর বিরতির পর আবার কোটি টাকার সুপার কাপ আয়োজনের তোড়জোড় শুরু করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ২ থেকে ১৩ এপ্রিল এই টুর্নামেন্টের চতুর্থ আসর অনুষ্ঠিত হবে।

বাফুফে এবারের মৌসুমের সূচি ঘোষণার সময় সুপার কাপের জন্য সময় নির্ধারণ করে রেখেছিল ২-১৩ এপ্রিল। তবে শর্ত ছিল, স্পন্সর পাওয়া গেলে বাফুফে কোটি টাকা প্রাইজমানির এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করবে।

এ জন্য চলমান ফেডারেশন কাপ ফুটবলের সূচিতেও বড় একটা বিরতি রেখে দিয়েছে বাফুফে। ফেডারেশন কাপের বর্তমান যে সূচি, তাতে আগামীকাল (মঙ্গলবার) দুটি ম্যাচ হওয়ার পর আবার খেলা হবে মে মাসের ২ তারিখে।

আগামী দুই তিন দিনের মধ্যে স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথাবার্তা চূড়ান্ত হলে বাফুফে সুপার কাপের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবেন বলে জানিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ। তবে টুর্নামেন্ট কিভাবে হবে, সেই ফরম্যাট ঠিক করে রেখেছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সুপার কাপে অংশ নেবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ১১ ক্লাব। তবে চূড়ান্ত পর্ব হবে ৬ দল নিয়ে দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে। এর আগে ১৪ ও ২৮ ফেব্রুয়ারি হবে সুপার কাপের বাছাইয়ের পাঁচটি ম্যাচ।

বাফুফে সাধারণ সম্পাদক জানিয়েছেন, বাংলাদেশে প্রিমিয়ার লিগের গতবারের টেবিল অনুযায়ী শীর্ষ ৪ দল সরাসরি চূড়ান্ত পর্বে খেলবে। বাকি ৭ দলের মধ্যে থেকে দুটি উঠবে বাছাইয়ের মাধ্যমে।

গত লিগের টেবিলের শীর্ষ চার দল ছিল বসুন্ধরা কিংস, আবাহনী লিমিটেড, সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব প্রিমিয়ার লিগ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ায় পঞ্চম স্থানে থাকা মোহামেডান ঢুকে যাবে সেরা চারে।

বাছাই পর্ব কিভাবে হবে তাও ঠিকঠাক। টেবিলের নিচের ৭ দলের মধ্যে থেকে লটারির মাধ্যমে একটি দল বাই পেয়ে বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বে উঠবে। বাকি ৬ দলের মধ্যে লটারির মাধ্যমে তিনটি ম্যাচ হবে ১৪ ফেব্রুয়ারি। জয়ী ৩ এবং বাই পাওয়া দল নিয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি হবে দ্বিতীয় বাছাইয়ের দুটি ম্যাচ। ২৮ ফেব্রুয়ারির জয়ী দুই দল যোগ দেবে সরাসরি সুযোগ পাওয়া চার দলের সঙ্গে।

বাছাই পর্বের পাঁচটি ম্যাচই হবে ঢাকার বাইরে। চূড়ান্ত পর্ব বাফুফে ঢাকায় করতে আগ্রহী। বাফুফে সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, ‘চূড়ান্ত পর্ব কোথায় হবে, তা এখনও ঠিক হয়নি। এ বিষয়টি কমিটির সভা করে সিদ্ধান্ত নেবে।’

কাজী মো. সালাউদ্দিন প্রথমবার বাফুফে সভাপতি নির্বাচিত হয়ে চমক দেখিয়েছিলেন কোটি টাকার প্রাইজমানির সুপার আপ আয়োজন করে।

২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড। ফাইনালে মোহামেডান হারিয়েছিল আবাহনীকে।

২০১১ সালে দ্বিতীয়বার ফাইনালে মোহামেডানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আবাহনী। সুপারকাপ তৃতীয় ও শেষবার হয়েছিল ২০১৩ সালে। ওই আসরের ফাইনালে শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল মোহামেডান। দীর্ঘ ১০ বছর এই টুর্নামেন্ট আর আয়োজন করতে পারেনি বাফুফে।

এবারের আসরেও কোটি টাকা প্রাইজমানি থাকছে কিনা জানতে চাইলে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক জানিয়েছেন, ‘আশা করি স্পন্সর প্রতিষ্ঠান সে বিষয়টি বিবেচনা করবে।’

(ওএস/এএস/ফেব্রুয়ারি ০৬, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

২৩ এপ্রিল ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test