Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‘রিভারাইন গোল্ডেন’ দেড় টনের সম্পূর্ণ নতুন ইনভার্টার স্মার্ট এসি

২০১৯ ডিসেম্বর ০১ ১৬:১৩:২৫
‘রিভারাইন গোল্ডেন’ দেড় টনের সম্পূর্ণ নতুন ইনভার্টার স্মার্ট এসি

স্টাফ রিপোর্টার : সাধ্যের ভেতর সাশ্রয়ী দামে আমাদের দেশের আবহাওয়া এবং অবকাঠামো বিবেচনায় নিয়ে ওয়ালটন বেশ কয়েক বছর ধরে আমাদের দেশে  ভালো মানের স্প্লিট এয়ার কন্ডিশনার তৈরি এবং বাজারজাত করে আসছে। বর্তমানে ওয়ালটন এর বিভিন্ন মডেলের এসি দেশব্যাপী মানুষের কাছে বহুল ব্যবহৃত এবং বেশ জনপ্রিয়ও বটে। 

ওয়ালটন সম্প্রতি বাজারে নিয়ে এসেছে তাদের একদম নতুন মডেলের একটি এয়ার কন্ডিশনার WSI-RIVERINE (Golden) -18C [Smart]। এটি ওয়ালটন এর রিভারাইন সিরিজের একদম নতুন সংযোজন। রিভারাইন সিরিজে এর আগে ওয়ালটন বেশ কয়েকটি নন ইনভার্টার এসি নিয়ে এসেছে। WSI-RIVERINE (Golden) -18C [Smart] একটি ১৮০০০ বিটিইউ তথা ১.৫ টনের ইনভার্টার এসি, যার বর্তমান বাজার মূল্য ৬৭,০০০ টাকা।

● মডেলঃ WSI-RIVERINE (Golden) -18C (Smart)
● ক্যাপাসিটিঃ দেড় টন
● ওয়াটঃ ৫২৭৫
● দামঃ ৬৭,০০০

রিভারাইন (স্মার্ট) হল একটি আইওটি (ইন্টারনেট অফ থিংস) প্রযুক্তি সুবিধাসম্পন্ন এসি। যার ফলে আপনি এটিকে ওয়াইফাই এর মাধ্যমে বিভিন্ন স্মার্ট ডিভাইস, যেমন স্মার্টফোন দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। আপনি এই এসিকে ‘গুগল হোম’ এর মতো স্মার্ট হোম কন্ট্রোলার ডিভাইস এর সাথে যুক্ত করেও নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। এর সাথে আসা একটি মোবাইল অ্যাপস এর মাধ্যমে এই এসিটি আপনি স্মার্টফোনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন।

যেহেতু এসিটি আপনার ওয়াইফাই এর সাথে যুক্ত থাকতে সক্ষম, তাই আপনি এটিকে অ্যাপস এর মাধ্যমে এসির কাছে না থাকলেও, অন্য যেকোনো জায়গা থেকে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। চিরচলিত এসির রিমোর্ট সবসময় হয়ত হাতের কাছে থাকে না, তবে মুঠোফোন সবসময়ই আমাদের সাথে থাকে, একারণে এসি নিয়ন্ত্রন হবে আরও স্মার্ট। আপনি একের অধিক এসি, এই একটি সিঙ্গেল অ্যাপস বা অ্যাপলিকেশন ব্যবহার করে নিয়ন্ত্রন করতে পারেন। এর পাশাপাশি অ্যাপস থেকে এসির দৈনিক পাওয়ার কন্সামপশন রিপোর্ট, স্ট্যাটিস্টিক রিপোর্ট, পারফর্মেন্স ডাটা ইত্যাদি তথ্য পাবেন।

রিভারাইন (স্মার্ট) একটি ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি। নন-ইনভার্টার এসি ঘরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে অন-অফ হওয়ার মাধ্যমে। এখানে এসি পূর্ণ শক্তিতে চালু হওয়ার পর ঘরের তাপমাত্রা আরামদায়ক অবস্থায় এলে এসির কমপ্রেসর বন্ধ হয়ে যায়। আবার ঘরের তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে গেলে, তখন চালু হয়। এভাবে বারবার এসি চালু ও বন্ধ হওয়ার কারণে, এসি বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে, যার ফলে বিদ্যুৎ খরচ বেড়ে যায়।

অন্যদিকে ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি প্রথমে পূর্ণ শক্তিতে চালু হয়। পরে রুমের পরিবেশের আরামদায়ক তাপমাত্রা ঠিক রেখে এসিটি শক্তি খরচ কমিয়ে নিয়ে আসে। এভাবে কম শক্তিতে চলার কারণে কম বিদ্যুৎ প্রয়োজন হয় এবং বিদ্যুৎ খরচ কমে আসে। ইনভার্টার প্রযুক্তির এসিটিতে ব্রাসলেস ডিসি মোটর ব্যবহার করা হয়েছে, যার ফলে এটি খুবই স্মুথ এবং নিঃশব্দের সাথে কাজ করতে সক্ষম। এতে করে রাতে ঘুমানোর সময় এই এসি থেকে অনাকাঙ্ক্ষিত এমন কোনো যান্ত্রিক শব্দ আসবে না, যা আপনার ঘুমকে বিঘ্নিত করতে পারে। তাই এই এসিটি তার নিজের কাজ খুব ভালোভাবে করে যাবে একদম নিঃশব্দে পূর্ণ দক্ষতার সাথে।

ঘর কতোটা এবং কত দ্রুত ঠাণ্ডা হবে তা নির্ভর করে এসির ভিতর থাকা ফ্যানের ওপর। এই ফ্যান যত বেশি বড় হবে, এই এসিকে এর ফলে তত বেশি কার্যকর বলা যাবে। এই এসিটিতে থাকছে তুলনামূলক বড় ক্রস ব্লো ফ্যান। আর এর ফলে বাজারের অন্য সব এসির চাইতে এই এসিটির কুলিং স্পিড হবে বেশি তাড়াতাড়ি। আর এই ক্রস ব্লো ফ্যানটি অতো বেশি নয়েসি নয়, খুবই সাইলেন্টলি এর কাজ করে যায়।

এই এসিটি মাল্টি ডাইরেকশনে বাতাস প্রবাহ করতে সক্ষম। অনেক এসি শুধু এক দিকেই বাতাস প্রবাহ করে, যার ফলে যারা কেবল এসির সামনে থাকে তারাই বাতাস পায়, ঘরের কোনায় বা অন্য কোন স্থানে থাকা কেউ বাতাস পায় না। তবে রিভারাইন এসির মাল্টি ডাইরেকশনে বাতাস প্রবাহ করার ফলে সব দিকেই প্রায় সমান শীতল বাতাস প্রবাহিত করা যাবে।

রিভারাইন (স্মার্ট) এসিতে আপনি পাবেন ১৬ থেকে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত তাপমাত্রা বাছাই করার রেঞ্জ। অনেক এসিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পাওয়া যায় ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস, তবে এতে সর্বনিম্ন ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত পাবেন।

আবাসিক এবং বাণিজ্যিক এয়ার কন্ডিশনার ব্যবহারের জন্য আর৪১০এ হলো একটি মানসম্মত রেফ্রিজারেন্ট গ্যাস। আগে আর২২ ব্যবহার করা হতো যা ছিল ওজোন স্তর জন্য খুবই মারাত্তক। অন্যদিকে আর৪১০এ রেফ্রিজারেন্ট ওজোন স্তর এবং পরিবেশের সেই ক্ষতিটা করেনা।

শুধু এসি কিনলেই কি হবে? সেই এসিটি কতোটা বিদ্যুৎ খরচ করবে? আর আদৌ সেটি কতোটা বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হবে এই বিষয়টি বিবেচনা করতে হবে। বিদেশের সাথে বাংলাদেশ এর ইলেক্ট্রিসিটির মাত্রা ঠিক নয়, আর সে এসিগুলো তাদের দেশের জন্য উপযোগী করে বানানো। ফলে সেই সব এসি আমাদের জন্য ভালো হচ্ছে কিনা তা কেনার আগে বোঝার উপায় থাকে না। আর এই কারণে পরে ফাঁকিতে পড়তে হয়।

এসির মত উচ্চ ওয়াটএর যন্ত্রের ক্ষেত্রে কোইফিসিয়েন্ট অফ পারফর্মেন্স খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একটি এসির কোইফিসিয়েন্ট অফ পারফর্মেন্স পয়েন্ট যতো ভালো হবে, এসিটি ঠিক ততো কর্মদক্ষতা সম্পন্ন এবং বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হবে। আর এই দিক থেকেও রিভারাইন (স্মার্ট) এসিটি সঠিক অবস্থানে আছে।

রিভারাইন (স্মার্ট) এসিটি দেখতে এবং অন্যসব এসির সাথে তুলনা করতে আপনি এখনি চলে যেতে পারেন আপনার কাছের ওয়ালটন প্লাজায়। ওয়ালটন এসিতে রয়েছে ৬ মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি। ওয়ালটন এসির কম্প্রেসরে আপনি পাবেন সর্বোচ্চ ১০ বছরের ওয়ারেন্টি। আরো পাবেন ৩ বছর পর্যন্ত ফ্রি বিক্রয়োত্তর সুবিধা। বর্তমানে সারা দেশে আইএসও সনদপ্রাপ্ত ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম কর্তৃক পরিচালিত ৭২টি সার্ভিস সেন্টার রয়েছে। যেখানে যেকোনো সমস্যায় খুব সহজেই সেবা পেয়ে যাবেন।

(ওএস/এসপি/ডিসেম্বর ০১, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test