E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

রাতেও মুরগির বাজার তদারকি করবে ভোক্তা অধিদপ্তর

২০২৩ মার্চ ৩১ ১৭:৩৪:৫৭
রাতেও মুরগির বাজার তদারকি করবে ভোক্তা অধিদপ্তর

স্টাফ রিপোর্টার : ক্রয় রশিদের গরমিলে মুরগির দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে মনে করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। তিনি বলেন, অচিরেই রাতের বেলায় বাজার তদারকির জন্য ভোক্তা অধিদপ্তর থেকে টিম কাজ করবে। ব্যবসায়ীদের জন্য সতর্কবাণী থাকবে। মুরগির ক্রয়মূল্য এবং বিক্রয়মূল্যের মধ্যে বেশি গরমিল থাকলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

শুক্রবার (৩১ মার্চ) রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ভোক্তারা দুই ধরনের পণ্য কিনে থাকেন। মুদি পণ্য ও কাঁচা সবজি। মুদি পণ্যের ব্যবসায়ীরা বলছেন বাজার স্থিতিশীল রয়েছে, তেলের দাম কমতির দিকে। উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বলেছিল মুরগির দাম ১৯০ থেকে ১৯৫ টাকা পড়বে। তাহলে খুচরা পর্যায়ে সর্বোচ্চ ২১০ টাকা দাম পড়তে পারে। কিন্তু আজ বাজারে দেখলাম কোনো ব্যবসায়ী মুরগির কেজি ২১৫ টাকায় বিক্রি করছেন। তাদের রশিদে ক্রয়মূল্য দেখানো হয়েছে ১৯২ থেকে ১৯৩ টাকা।

তিনি বলেন, তবে একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, মুরগির দাম খুব বেশি কমলে খামারিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। বর্তমানে খামারে মুরগির উৎপাদন খরচ ১৬০ থেকে ১৬৫ টাকার মধ্যে। আমরা চাই উৎপাদন যেন ব্যাহত না হয়।

ভোক্তা অধিদপ্তরের পরিচালক বলেন, আসন্ন ঈদ উপলক্ষে বাস মালিক ও কসমেটিকস ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আমাদের বৈঠক রয়েছে। কসমেটিকস পণ্যের দাম যদি বেশি রাখা হয় তাহলে সে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হবে। আর বাস মালিকদের প্রতি নির্দেশনা থাকবে ঈদযাত্রায় সঠিক ভাড়া যেন তারা নিশ্চিত করেন।

(ওএস/এসপি/মার্চ ৩১, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

১৮ জুন ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test