Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

প্রস্তুত হলে বড় পর্দায় কাজ করবো : সাবিলা নূর

২০১৯ এপ্রিল ১৫ ১৫:০০:৫৯
প্রস্তুত হলে বড় পর্দায় কাজ করবো : সাবিলা নূর

মারুফ সরকার : ছাট পর্দার ব্যস্ত অভিনেত্রীদের মধ্যে বর্তমান সময়ে বেশ গুছিয়ে কাজ করছেন সাবিলা নূর। গেল বছর বেশ কিছু নাটকের কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও বছরের শেষের দিক থেকে পড়াশোনার জন্য কাজ অনেকটা কমিয়ে দিয়েছেন। এখন পড়াশোনার ফাঁকে হাতে গুণা কয়েকটা কাজে দেখা যায় তাকে। এই মুহূর্তে খুব ব্যস্ত না হলেও আসছে পহেলা বৈশাখে তিনটি নাটকে দেখা যাবে সাবিলাকে। সাক্ষাতকারটি নিয়েছেন আমাদের প্রতিনিধি মারুফ সরকার । তার আলাপের চুম্বকাংশ তুলে ধরা হলো।

অভিনয়ে এখন তেমন দেখা যাচ্ছে না আপনাকে। এর কারণ কি?

সাবিলা নূর: আমি কাজ নিয়ে এখন খুব চুজি। বেছে বেছে কাজ করি। অনেক কাজ করতে হবে সেটা আমি বিশ্বাস করি না। দর্শক মনে দাগ কাটার জন্য একটা নাটকই যথেষ্ট। আর তাছাড়া আমার এখন পড়াশোনা নিয়ে খুব চাপ যাচ্ছে। একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছি। এখন পঞ্চম সেমিস্টারে আছি। অনার্স শেষ করতে আরও ১ থেকে দেড় বছর সময় লাগবে। যার জন্য কাজ এখন খুব বেশি করা হচ্ছে না। এর ফাঁকে যতটুকু সময় পাচ্ছি কাজ করছি তাও অনেক কম। পড়াশোনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত অভিনয়ে পুরোপুরি নিয়মিত হতে পারবো না।

বৈশাখের কাজগুলো সম্পর্কে জানতে চাই ?

সাবিলা নূর: এবারের বৈশাখে এখন পর্যন্ত তিনটি নাটক আসবে যেটা একদম কনফার্ম। আরও কিছু কাজ আছে সেগুলা আসবে কিনা আমি জানি না। এরমধ্যে একটা কাজ বৈশাখের জন্যই করেছি আর বাকি দুইটা আগে কাজ করেছিলাম, এখন অন এয়ারে যাবে। নাটকগুলো হচ্ছে ওসমান মিরাজের ‘লাভ এট মিশন’ যেটাতে আমার সাথে থাকছে তৌসিফ মাহবুব, কাজল আরেফিন অমির ‘সেইলর’ আরফান নিশোর সাথে এবং রুপক বিন রউফের ‘একটি পুরনো দিনের গল্প’ এখানেও আমার সাথে থাকছেন আফরান নিশো।

সামনেই তো ঈদ আসছে। ঈদের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। ঈদের কাজ কি শুরু করেছেন আপনি?

সাবিলা নূর: হ্যাঁ। এরমধ্যে ৩টা ঈদের নাটকের কাজ করেছি। হাতে আরও ৫টা নাটক আছে ঈদের জন্য। সেগুলোর শিডিউল দিয়ে রেখেছি। আগামী ২২ এপ্রিল থেকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত আমার পরীক্ষা রয়েছে। এরপর সে কাজগুলো করবো।

এরমধ্যে আপনি একটি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞাপন করেছেন। এটা নিয়ে একটু জানতে চাই ?

সাবিলা নূর: হ্যাঁ। এটা একটা মোবাইল ফোন কোম্পানির। এটার নাম এখনও জানি না। গত ২৭ ও ২৮ মার্চ বিজ্ঞাপনটির শুটিং করেছি দুবাইতে। বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করেছেন হলিউড নির্মাতা পিটার প্যাসিক। ২০০১ সালে নিউ ইয়র্ক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘সলিটার’ ছবির জন্য সেরা নবাগত পরিচালকের পুরস্কার পান এই নির্মাতা।

এই কাজটির সাথে যুক্ত হলেন কিভাবে?

সাবিলা নূর: গত বছর এই কোম্পানির একটি অনলাইন বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছিলাম। সেসময় তারা আরও কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রের জন্য আমার সাথে ছয় মাসের চুক্তি করেছে। সেই চুক্তির প্রথম কাজ এই বিজ্ঞাপনটি। আর এই ফোন কোম্পানিটি নতুন, ঈদেই বাজারে আসবে। রমজান মাসে এটি দেশটির প্রায় সব টিভি চ্যানেলে, এমনকি অন্য দেশের স্যাটেলাইট চ্যানেলেও প্রচারিত হবে।


সামনে আপনার যে কাজগুলো আসবে সেগুলোতে ভিন্নতা কেমন থাকছে বলে আপনি মনে করেন?

সাবিলা নূর: গত দুই ঈদেই আমার বেশকিছু নাটক গিয়েছে যেগুলো থেকে দর্শক সাড়াও পেয়েছি খুব ভালো। সেখানে অনেক দর্শকরাই তাদের মন্তব্যে জানিয়েছেন আমি আগের যে সাবিলা নূর ছিলাম সেটা থেকে বের হয়ে ভিন্ন রকম চরিত্রে কাজ করেছি যেগুলো তাদের পছন্দ হয়েছে। এবার আমি এটা মেনেই কাজ করছি, গতবার আমি যে মান বজায় রেখে কাজ করেছি সেটা থেকে আরও ভালো কিছু করতে, আমার অভিনয় ইমপ্রুভ করতে, ভিন্ন চরিত্রে কাজ করতে। বেশি কাজ করার চেয়ে কাজের স্ট্যান্ডার্ডটা মেনে কাজ করবো।

এখন অনলাইনের যুগ। একটা কাজ দেখার পর দর্শকরা খুব সহজেই তাদের মন্তব্য করতে পারছে। এক্ষেত্রে দর্শকরা যে মন্তব্যগুলো করে সেগুলো আপনাদের পরবর্তী কাজে কতটা প্রভাব ফেলে?

সাবিলা নূর: হ্যাঁ এটা ঠিক। এখন একটা কাজ প্রকাশ হওয়ার পর সেটা দেখে দর্শকরা সেখানে মন্তব্য করতে পারছেন। এখন বিষয় হলো পজেটিভ, নেগেটিভ থাকবেই। কিন্তু নেগেটিভ যখন দেখি তখন মন খারাপ হয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু আমার কাজের ক্ষেত্রে এত বেশি পজেটিভ মন্তব্য পাচ্ছি যে নেগেটিভ নিয়ে ভাবার সময়ই নেই বলতে গেলে। পজেটিভ মন্তব্যগুলোকে একটা মোটিভেশন হিসেবে নিয়ে পরবর্তী কাজে এপ্লাই করার চেষ্টা করি সবসময়। দর্শকদের কথা মাথায় রেখে কাজ করি। তারা যে মন্তব্য করে কখনও যেন সেটা থেকে নিচে নেমে কাজ না করি বরং তার চেয়ে ভালো কিছু করি সে চেষ্টাটা করি।

ছোট পর্দার অনেকেই এখন সিনেমাতে কাজ করছেন। আপনাকে বড় পর্দায় কবে দেখা যাবে?

সাবিলা নূর: সত্যি বলতে আমি এখনও বড় পর্দার জন্য প্রস্তুত নই। আমি যখন প্রস্তুত হবো তখন অবশ্যই কাজ করবো। সবারই তো বড় পর্দায় কাজ করার ইচ্ছে থাকে, তেমনি আমারও আছে । আমি যখন মনে করবো যে বড় পর্দায় কাজ করার জন্য আমি শতভাগ প্রস্তুত এবং আমি আমাকে নতুনভাবে উপস্থাপন করতে পারবো সেখানে তখনই আমি কাজ করবো,তার আগে নয়।

(এমএস/এসপি/এপ্রিল ১৫, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

২০ এপ্রিল ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test