E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

পাঁচ লাখ টাকা করে দিতে রাজি জাবালে নূর

২০১৮ আগস্ট ১২ ১৫:৫৪:০৪
পাঁচ লাখ টাকা করে দিতে রাজি জাবালে নূর

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় নিহত দুই শিক্ষার্থী মিম ও রাজিবের পরিবারকে জাবালে নূর পরিবহনের মালিক পাঁচ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হয়েছে। রবিবার বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টে এ তথ্য জানিয়েছে। একই সঙ্গে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দাখিল করেছে বিআরটিএ।

হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। পরে আদালত এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ৭ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন।

এর আগে গত ৩০ জুলাই আজকের দিনে (১২ আগস্ট) বিআরটিএ-কে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে ওই দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহনের জন্য জাবালে নূর পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এছাড়া কুর্মিটোলার ওই মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় জাবালে নূর পরিবহনের দায় নির্ধারণে তদন্ত প্রতিবেদন ২ মাসের মধ্যে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অ্যাকসিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পরিচালকের প্রতি নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এতে সহায়তা করবে পুলিশ কমিশনার ও বিআরটিএ।

জনস্বার্থে করা এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল নিজেই শুনানি করেছিলেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ফরিদা ইয়াসমিন।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসের চালকের রেষারেষিতে বাসচাপায় মিম ও রাজিব নামের দুই শিক্ষার্থী নিহত হয়। আহত হয় আরও ১০-১৫ জন শিক্ষার্থী। ঘটনার দিনই নিহত দিয়া খানম মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন। মামলা নং ৩৩ (৭) ১৮।

দুর্ঘটনার দিন থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজটির শিক্ষার্থীরা। এরপর ৯ দফা দাবিতে টানা ৯ দিন রাজপথে আন্দোলনে ছিল তারা।

(ওএস/এসপি/আগস্ট ১২, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test