E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

এনবিআর চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার নোটিশ

২০২৪ মে ১৯ ১৭:২৭:০৪
এনবিআর চেয়ারম্যানকে আদালত অবমাননার নোটিশ

স্টাফ রিপোর্টার : জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। ২০২০ সালের ৮ নভেম্বর দেয়া হাইকোর্টের রায় ও আদেশ না মানায় এ নোটিশ পাঠানো হয়।  

ল' অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের পক্ষে আজ রবিবার ইমেইলে এই নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ম্মোহাম্মদ হুমায়ন কবির (পল্লব) ও ব্যারিস্টার মোঃ কাউছার।

আগামী ১০ দিনের মধ্যে মহামান্য হাইকোর্টের রায়ে প্রদত্ত নির্দেশনা না মানলে তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় মামলা করা হবে বলে নোটিশে জানানো হয়েছে।

নোটিশে এনবিআরের চেয়ারম্যানকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়, আপনি সর্বোচ্চ আদালতের আদেশ পেয়েছেন এবং আদালতের আদেশ সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত। আদালতের আদেশ মেনে চলতে আপনি বাধ্য। কিন্তু এখনো দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশ আমলে নেননি। আদালতের আদেশ গুরুতরভাবে লঙ্ঘন করেছেন। দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে ইচ্ছাকৃতভাবে অবহেলা এবং অবমাননার জন্য আপনাকে বিচারের সম্মুখীন হতে হবে।

এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ম্মোহাম্মদ হুমায়ন কবির (পল্লব) বলেন, ২০২০ সালের ৮ নভেম্বর মহামান্য হাইকোর্ট তার প্রদত্ত রায়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে প্রতি ছয় মাস অন্তর অন্তর গুগল, ফেইসবুক, ইউটিউব, ইয়াহু, আমাজন সহ অন্যান্য ইন্টারনেট ভিত্তিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিজ্ঞাপন, ডোমেইন বিক্রি, লাইসেন্স ফি সহ সকল প্রকার লেনদেন থেকে মূসক, টার্ন ওভার কর ও সম্পূরক শুল্ক, ধারা ১৫ এর অধীন আরোপিত মূল্য সংযোজন কর এবং আয়কর প্রদান সহ সকল ধরনের বকেয়া রাজস্ব আদায়ের বিবরণী হলফনামা প্রদান করত: মহামান্য হাইকোর্টে দাখিল করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হাইকোর্টের আদেশ প্রতিপালন করেনি যা আদালত অবমাননার শামিল। ফলে রায় প্রতিপালন না করায় এনবিআর এর চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা মো: রহমাতু্ল মুনিমকে রবিবার (১৯ মে) ইমেইলে আদালত অবমাননার অভিযোগে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

এর আগে ২০১৮ সালের ১২ এপ্রিল মহামান্য হাইকোর্ট প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে রুল জারি করেন এবং বাংলাদেশ ব্যাংক এনবিআর সহ সকল বিবাদীকে গুগল, ফেসবুক, অ্যামাজনসহ সকল অনলাইন কোম্পানির কাছ থেকে বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী ট্যাক্স ও ভ্যাট আদায়ের নির্দেশ দেন। উক্ত অন্তরবর্তী কালীন আদেশের প্রেক্ষিতে বেশ কিছু অনলাইন কোম্পানি বাংলাদেশ ভ্যাট দেওয়া শুরু করে। উক্ত রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে কিছু নির্দেশনা সহ রায় ঘোষণা করেন আদালত।

ব্যারিস্টার মোহাম্মদ হুমায়ন কবিরর (পল্লব), ব্যারিস্টার মোহাম্মদ কাউসারসহ বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের কয়েকজন আইনজীবী জনস্বার্থে ২০১৮ সালের ৯ এপ্রিল হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় একটি রিট করেন। রিটে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, গুগল, ফেইসবুক, ইয়াহু সহ মোট ১২ জনকে বিবাদী করা হয়।

(এসটি/এসপি/মে ১৯, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২৫ জুন ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test