E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

গালওয়ানে আবারও ফিরে আসতে পারে চীনা সৈন্যরা

২০২০ জুলাই ০৭ ১৬:০০:০০
গালওয়ানে আবারও ফিরে আসতে পারে চীনা সৈন্যরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় আবারও চীনা সৈন্যদের ফিরে আসার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। গালওয়ান উপত্যকার ১৪ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্ট থেকে মাত্র এক কিলোমিটার সরে গেছে চীনা বাহিনী।

প্যাংগং রেঞ্জের ফিঙ্গার পয়েন্টে তাদের অস্থায়ী ছাউনিগুলো সরানো হয়েছে। তবে চীনা বাহিনীর এই অতি সামান্য পদক্ষেপে এখনও আশার আলো দেখছে না ভারতীয় সেনাবাহিনী। বরং ভারতীয় সেনা সূত্রে জানানো হয়েছে, ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রায় ১৮ কিলোমিটার এলাকা ঢুকে পড়েছিল চীনা বাহিনী।

সেখানে মাত্র এক থেকে দুই কিলোমিটার পিছু হটেছে তারা। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে নিজেদের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকায় ফিরে যায়নি চীনের সৈন্যরা। তাই চীনা বাহিনীর আবারও ফিরে আসার সম্ভাবনাকে একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

ভারতীয় সেনাবাহিনী বলছে, দু'দেশের সেনাবাহিনী যেখানে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিল সেখানে পিপি ১৪ থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার সরে গেছে চীনা বাহিনী। পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৫ ও পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৭ থেকে কিছু তাঁবু গুটিয়ে ফেলা হয়েছে। তবে চীনা সেনাদের হাবভাবে খুব একটা স্বস্তি পাচ্ছে না ভারত। সীমান্তে পরিস্থিতির দিকে সতর্ক নজর রাখছে তারা।

গত ৩০ জুন চীন-ভারত সেনা কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকের পর সীমান্ত সমস্যার সমাধান না হওয়ায় চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। এরপরেই পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, এই আলোচনায় দু'দেশই সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে।

প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় দু'দেশের সীমান্তে শান্তি ও স্থিতি ফিরিয়ে আনতে দুই দেশই তাদের বাহিনী সরিয়ে নিতে শুরু করে। মধ্যবর্তী স্থানে অন্তত তিন কিলোমিটার জুড়ে একটি নিরপেক্ষ এলাকা বা বাফার জোন তৈরি হবে। এর মাধ্যমে দুই দেশই যেন নিয়ন্ত্রণ রেখায় বিধি-নিষেধ কঠোরভাবে মেনে চলে তা নিশ্চিত করা হবে।

গোগরা হট স্প্রিং ও প্যাংগং লেক বরাবর কিছু সাঁজোয়া গাড়ি সরিয়েছে চীন। তবে তাদের বাহিনী এখনও পুরোপুরি ফিরে যায়নি। তাছাড়া প্যাংগং রেঞ্জে ফিঙ্গার পয়েন্ট ৪ এর কাছাকাছি নিজেদের কংক্রিটের বাঙ্কার বানিয়েছিল চীন।

সেখানে তৈরি হয়েছিল শতাধিক অস্থায়ী ছাউনি। সামরিক পরিকাঠামোও গড়ে তোলা হয়েছিল। তৈরি হয়েছিল অস্থায়ী বিমানঘাঁটি। সেসব এখনও পুরোপুরি সরানো হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত নয় ভারতীয় বাহিনী।

(ওএস/এসপি/জুলাই ০৭, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

০৯ আগস্ট ২০২০

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test