E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

হাতকে আকর্ষণীয় করতে করণীয়

২০১৮ অক্টোবর ১৫ ১৬:১১:১৯
হাতকে আকর্ষণীয় করতে করণীয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক : মানব জীবনে হাতের ব্যবহার হয় সবচেয়ে বেশি। এমন কোন কাজ নেই যেখানে হাতের ব্যবহার নেই। তবে সারাদিনে হাতকে দিয়ে পরিশ্রম নয়, তার যত্নেও একটু সময় বরাদ্দ রাখা উচিৎ। আকর্ষণীয় হাত ব্যক্তিত্ব প্রকাশ করে। কোমল ও আকর্ষণীয় হাতের হ্যান্ডশেক যেকোনো মনে ইতিবাচক রেখাপাত করতে পারে।

চলুন জেনে নেয়া যাক কিভাবে হাত আকর্ষণীয় করবেন

নখের যত্ন

আকর্ষণীয় হাত উপস্থাপন করার প্রথম শর্ত হল নখের যত্ন। নখের ধরণ অনুযায়ী যত্ন নিতে হবে। ভঙ্গুর নখের যত্নে ময়েশ্চারাইজার লোশন ব্যবহার করুন। ভঙ্গুর নখের অধিকারীরা পানি থেকে একটু দূরে থাকবেন। নখ শক্ত ও উজ্জ্বল করতে রাতে শোবার আগে নখে অলিভ অয়েল লাগান। যত্রতত্র নখের ব্যবহার ত্যাগ করতে হবে। নখ কাটতে ধারালো নেইল কাটার ব্যবহার করতে হবে। তবে নখ চারকোনা শেপে কাটা পরিহার করা উচিৎ। অতিরিক্ত নেইল পলিস বা রিমুভার ব্যবহার ত্যাগ করতে হবে। নখ কামড়ানোর মতো বাজে অভ্যাস থাকলে হাতের পাশে সফট কোনও বল রাখুন। তবে কিডনি বা থাইরয়েডের সমস্যা, পুষ্টির অভাব, আয়রন কিংবা অন্যান্য খনিজ পদার্থের অভাব থাকলে নখের ভঙ্গুরতা বৃদ্ধি পায়। এক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। নখের উত্তম পরিচর্যার মাধ্যমে হাত আকর্ষণীয় হবে।

দুধের সর মাখুন

ময়েশ্চরাইজ়ার হিসেবে দুধের সর খুবই কার্যকরী। দুধের ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের পিএইচ ব্যালেন্স ঠিক রাখে। পুরো হাত ও তালুতে ভালো করে দুধের সর মাখান, হাত শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

দুধ, কাঁচা হলুদ ও মসুর ডাল

সপ্তাহে অন্তত একদিন মশুর ডাল ও কাঁচা হলুদ বাটার সঙ্গে কাঁচা দুধ মিশিয়ে দুই হাতে ভালো করে লাগান। হাত শুকিয়ে এলে হালকা কুসুম গরম পানিতে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। পর্যায়ক্রমে হাতের ত্বকের উজ্জ্বলতা বেড়ে হাত আকর্ষণীয় হবে।

অলিভ অয়েল ও চিনির মিশ্রণ

এক চা চামচ অলিভ অয়েলের সঙ্গে আধা চামচ চিনি দিয়ে পরিষ্কার পাত্রে মিশান। চিনি পুরো গলে গেলে দুই হাতের কনুই পর্যন্ত ভালো করে মাখান। আধা ঘণ্টা পর হাত ধুয়ে ফেলুন।

লেবু ও মধুর মিশ্রণ

তিন টেবিল চামচ লেবুর রসের সঙ্গে পরিমাণ মত মধু আর বেকিং সোডার মিশ্রণ করে পুরো হাতে ভালোভাবে মাখান৷ হাত শুকিয়ে এলে ধুয়ে ফেলুন। লেবুতে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড ত্বকের পোড়াভাব আর কালো দাগ কমায়, আর মধুর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না৷ আর বেকিং সোডার ব্যবহারে পুরাতন কোষ ঝরে গিয়ে হাত আকর্ষণীয় হবে৷

গোলাপজল ও গ্লিসারিন

হাতের রুক্ষভাব দূর করতে গোলাপ জলের সঙ্গে গ্লিসারিন মিশিয়ে পুরো হাতে লাগান। আধা ঘণ্টা পর ভালোভাবে হাত ধুয়ে ফেলুন।

কমলা লেবুর রস, দই ও ময়দার মিশ্রণ

মাসে অন্তত একবার কমলা লেবুর রস, দই ও ময়দার মিশ্রণে ঘরোয়াভাবে ম্যানিকিওর করান। যারা ঝামেলার জন্য বাসায় ম্যানিকিওর করতে চান না, আশপাশের সেলুনে গিয়ে ম্যানিকিওর করাতে পারেন। এছাড়া নারকেল তেল, ভ্যাসলিন অথবা আপনার পছন্দমতো ময়েশ্চারাইজিং লোশন দিয়ে ম্যাসেজ করতে পারেন। তাহলে হাতের ত্বক নরম হবে এবং সুন্দর ও মসৃণভাবে ফুটে উঠবে।

হাতের অলংকার

হাতের অলংকার মানুষের রুচিবোধ, ব্যক্তিত্ববোধ, জীবনাচারের প্রকাশ ঘটায়। এজন্য সোনা, রূপা অথবা যেকোনো ধাতব আংটি ব্যবহার করতে পারেন। নারী-পুরুষ উভয়ই হাতের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে আংটি পরতে পারেন। এক্ষেত্রে হাত আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন হবে। এছাড়া আকর্ষণীয় ডিজাইনের ঘড়ি, বেসলেট ও আংটি পরা যেতে পারে।

তবে হাতের যত্নে না জেনে অধিক প্রসাধনী বা অন্য কিছুর ব্যবহার করলে হাত আকর্ষণীয় নয় বরং বিরূপভাবে উপস্থাপন হবে। অধিক ক্ষারযুক্ত সাবান, অনুমোদনহীন অপরিচিত কোম্পানির প্রসাধনী ব্যবহার থেকে দূরে থাকতে হবে। তেল, ক্রিম ও লিকুইড জাতীয় যেকোনো প্রসাধনী কেনা ও ব্যবহারের আগে উৎপাদনের তারিখ দেখতে হবে। অন্যথায় হাতের যত্ন বিফলে যাবে।

(ওএস/এসপি/অক্টোবর ১৫, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৩ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test