E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

জিহ্বা সাদা হয়ে যাওয়া যে রোগের গুরুতর লক্ষণ

২০২২ নভেম্বর ২৭ ১৬:৪৭:০১
জিহ্বা সাদা হয়ে যাওয়া যে রোগের গুরুতর লক্ষণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক : জিহ্বা সাদা হওয়া বা হোয়াইট টাঙের সম্ভাব্য কিছু কারণ আছে। মুখের দুর্গন্ধ ও শুষ্কতা হলো ‘সাদা জিহ্বা’র প্রাথমিক লক্ষণ। এক্ষেত্রে জিহ্বার উপরে পুরু সাদা আস্তরণ পড়ে, আবার কারও কারও জিহ্বায় দাগ পড়ে।

ব্রাশ করলে কিংবা টাঙ স্ক্র্যাবার ব্যবহারের পরও এই দাগ সহজে যায় না। অনেকটা সাদা লোমের মতো দেখায় জিহ্বা। সেগুলো আসলে জৈব কণা, ব্যাকটেরিয়া ও মৃত কোষ দ্বারা সৃষ্ট প্লেক বা ফলক।

জিহ্বায় সাদা ফলক (যা হলুদও হতে পারে) বিভিন্ন কারণে দেখা দিতে পারে, যেমন জ্বালা বা সংক্রমণের কারণে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এ সমস্যা কিছুদিন পরেই অদৃশ্য হয়ে যায়।

যদি পরিস্থিতি কয়েক সপ্তাহের জন্য পরিবর্তিত না হয় ও খাওয়া বা কথা বলার সময় ব্যথার সৃষ্টি করে তাহলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

জিহ্বার রং বদলে যাওয়া নানা রোগের ইঙ্গিত দেয়। যদিও বাদামি জিহ্বা খুব বেশি কফি বা চা পান করার কারণে হয়। অন্যদিকে হলুদ জিহ্বা লিভারের রোগের ইঙ্গিত দেয়। আবার একটি লাল জিহ্বা ভিটামিন বি এর ঘাটতিকে বোঝায়।

কেন জিহ্বা সাদা হয়ে যায়?

জিহ্বা সাদা হয়ে যায় ব্যাকটেরিয়া, খাবারের অবশিষ্ট ও আটকে থাকা মৃত কোষের কারণে। এভাবেই ধীরে ধীরে জিহ্বার পৃষ্ঠে সাদা দাগের সৃষ্টি হয়।

কখনো কখনো অসুস্থতার কারণেও প্লেক দেখা দেয় জিহ্বায়। উদাহরণস্বরূপ, ভৌগলিক জিহ্বার ক্ষেত্রেও সাদা দাগ দেখা যায়।

এটি বেশ বিরল ও কারণ অজানা, তবে এক্ষেত্রে জিহ্বায় প্রচণ্ড জ্বালাপোড়ার সৃষ্টি হয়। মানসিক চাপ, অসুস্থতা বা হরমোনের পরিবর্তনের প্রতিক্রিয়াও এটি হতে পারে।

আরও যেসব কারণে জিহ্বা সাদা হয়ে যায়-

১. বয়স
২. অ্যান্টিবায়োটিক গ্রহণ (মুখে ছত্রাকের সংক্রমণ হলে সাদা-হলুদ ফলক দেখা যায়)
৩. এমন একটি খাদ্য যাতে পর্যাপ্ত ফল, শাকসবজি, ভিটামিন বি ১২ ও আয়রনের অভাব আছে
৪. দুর্বল ইমিউন সিস্টেম
৫. মুখের স্বাস্থ্যবিধি খারাপ থাকা
৬. ডেন্টাল প্রস্থেটিক্স বা অন্যান্য বস্তু যা জিহ্বার ক্ষতি করতে পারে
৭. ডিহাইড্রেশন ও মুখের শুষ্কতা

সাদা জিহ্বার কারণে ছোট ছোট ছিদ্রের মতো দেখা দেয় জিহ্বায়। এর কারণ হলো জিহ্বায় ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বেড়ে যাওয়া। অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল মাউথওয়াশ ব্যবহারের মাধ্যমে এটি থেকে পরিত্রাণ মিলবে।

এছাড়া জিহ্বার ছিদ্রের চারপাশে একটি রিং থাকতে পারে, যা স্বাভাবিক। এর মানে টিস্যু নিরাময় হচ্ছে। যদি আঘাতের কারণে প্লেক উপস্থিত হয় (ছিদ্র সহ), তা নিরাময়ে প্রায় দেড় সপ্তাহ সময় লাগতে পারে। এক্ষেত্রে গরম, মসলাদার, টক খাবার ও পানীয় এড়ানো উচিত।

সাদা জিহ্বা থেকে পরিত্রাণ মিলবে যেভাবে

১. মুখের স্বাস্থ্যবিধি ভালো রাখার অনুশীলন করা।
২. পর্যাপ্ত পানি পান করা।
৩. নরম টুথব্রাশ ব্যবহার করে দাঁত ব্রাশ করা।
৪. হালকা ফ্লোরাইড টুথপেস্ট ব্যবহার করুন, যেটিতে সোডিয়াম লরিল সালফেট নেই।
৫. ফ্লোরাইড মাউথওয়াশ ব্যবহার করুন।
৬. জিহ্বা ব্রাশ করুন বা স্ক্র্যাবার ব্যবহার করুন।
৭. মসলাদার, নোনতা, অ্যাসিডিক বা তাপমাত্রায় খুব গরম খাবার ও পানীয় এড়িয়ে চলুন।

সূত্র: ব্রাইট সাইড

(ওএস/এসপি/নভেম্বর ২৭, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test