Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

১৩ ডিসেম্বর, ১৯৭১

'রাতে যৌথ বাহিনী চারদিক থেকে বগুড়া শহর ঘিরে ফেলে'

২০১৯ ডিসেম্বর ১৩ ১৪:৩০:২২
'রাতে যৌথ বাহিনী চারদিক থেকে বগুড়া শহর ঘিরে ফেলে'

উত্তরাধিকার ৭১ নিউজ ডেস্ক : যৌথ বাহিনীর অগ্রবর্তী সেনাদল শীতলক্ষা ও বালু নদী অতিক্রম করে ঢাকার ৫-৬ মাইলের মধ্যে পৌঁছে যায়। বালু নদীর পূর্বদিকে পাকবাহিনী স্বীয় পরিসীমায় এক শক্ত প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তোলে। বাসাবো ও খিলগাঁও এলাকার চারিদিকে আগে থেকেই পাকিস্তান বাহিনী ফিল্ড ডিফেন্স বা আক্রমণ প্রতিহত করার  জন্যে সর্বাত্মক ব্যবস্থাসহ অবস্থান নিয়েছিল।

ভারতীয় বাহিনী ও মুক্তিবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনী ঢাকার পতন দ্রুততর করার প্রয়োজনে যুদ্ধের কৌশল পরিবর্তন করে। কেননা ঢাকার পতন হলে আনুষ্ঠানিকভাবে পাকিস্তনের পরাজয় চূড়ান্ত হবে।

ওদিকে পূর্ব ও উত্তর দিক থেকে মিত্রবাহিনী ঢাকার প্রায় ১৫ মাইলের মধ্যে পৌঁছে যায়। ৫৭নং ডিভিশনের দুটো বিগ্রেড এগিয়ে আসে পূর্ব দিক থেকে। উত্তর দিক থেকে আসে জেনারেল গন্ধর্ব নাগরার বিগ্রেড এবং টাঙ্গাইলে নামা ছত্রিসেনারা। পশ্চিমে ৪নং ডিভিশনও মধুমতি পার হয়ে পৌঁছে যায় পদ্মার তীরে।

রাত ন’টায় মেজর জেনারেল নাগরা টাঙ্গাইলে আসেন। ব্রিগেডিয়ার ক্লের ও ব্রিগেডিয়ার সান সিং সন্ধ্যা থেকে টাঙ্গাইলে অবস্থান করছিলেন। রাত সাড়ে ন’টায় টাঙ্গাইল ওয়াপদা রেস্ট হাউসে তাঁরা পরবর্তী যুদ্ধ পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনায় বসেন। আলোচনার শুরুতে মেজর জেনারেল নাগরা মুক্তিবাহিনীর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করে বলেন, “মুক্তিযোদ্ধারা যদি আমাদের বিনা বাধায় এতটা পথ পাড়ি দিতে সাহায্য না করতেন, তাহলে আমাদের বাহিনী দীর্ঘ রাস্তায় যুদ্ধ করতে করতে কøান্ত হয়ে পড়তো। রাস্তাতেই আমাদের অনেক শক্তি ক্ষয় হয়ে যেতো।”

উত্তরাঞ্চলে যৌথবাহিনী দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ থেকে ঢাকা মহাসড়ক ধরে বগুড়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। বগুড়ায় তখন শত্রুবাহিনীর একটি রেজিমেন্ট কামান ও ট্যাংকসহ অবস্থান করছিল। হিলি রক্ষাব্যুহ ছেড়ে আগেই পাকসৈন্যরা বগুগায় চলে এসে গড়ে তুলেছিল শক্তিশালী প্রতিরোধ।

রাতে যৌথ বাহিনী চারদিক থেকে বগুড়া শহর ঘিরে ফেলে। মধ্যরাতে যৌথ বাহিনীর তিনটি ব্যাটেলিয়ান উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব-উত্তর দিক থেকে শত্রুর ওপর আঘাত হানে।

তথ্যসূত্র : মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর

(ওএস/এএস/ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

২৯ জানুয়ারি ২০২০

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test