E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

ব্রহ্মপুত্রের ৪০টির বেশি নৌরুট বন্ধ

২০১৪ মার্চ ১৩ ১১:৩৭:০১
ব্রহ্মপুত্রের ৪০টির বেশি নৌরুট বন্ধ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : ব্রহ্মপুত্র নদের নাব্যতা অস্বাভাবিকভাবে হ্রাস পাওয়ায় কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, জামালপুর জেলার ৮টি উপজেলার ৪০টি নৌপথ বন্ধ হয়ে গেছে। এতে করে নৌপথে চলাচলকারী মানুষের দুর্ভোগের পাশাপাশি যোগ হয়েছে চরম ভোগান্তি। কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী, রাজিবপুর, চিলমারী, উলিপুর ও কুড়িগ্রাম সদর। গাইবান্ধার ফুলছড়ি, জামালপুরের ইসলামপুর ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সাথে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম নৌপথ। কিন্তু চলতি বছর পানি কমার সাথে সাথে এক হাজারেরও অধিক বালুচর জেগে ওঠায় বন্ধ হয়ে গেছে ৪০ টিরও বেশি নৌরুট। চিলমারী উপজেলার ৫টি, রৌমারীর ৩টি, রাজিবপুরের ২টি, কুড়িগ্রাম সদরের ২টি, গাইবান্ধা সদরের ৭টি, ফুলছড়ির ১০টি, ইসলামপুরের ৩টি, দেওয়ানগঞ্জের ৫টি নৌঘাট সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে পড়েছে।

 

এতে করে ১৫ লক্ষাধিক মানুষের যোগাযোগের ক্ষেত্রে মারাত্মক প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে। রৌমারীর নৌঘাট ইজারাদার আব্দুস সবুর জানান ৬ লক্ষাধিক টাকা নিয়ে লিজ নেওয়ার ৬ মাসের মধ্যে ঘাট বন্ধ হয়ে গেছে প্রায়। চরের লোকজন পায়ে হেটে হাটবাজারে যাতায়াত করছে। এতে করে তাকে পুরো টাকায় ক্ষতি পুষতে হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 

রাজিবপুর নৌ ব্যবসায়ী তৈয়ব আলী জানান, ২টি নৌকার উপরে তার সংসারের ব্যয় নির্ভর করতে হয়। কিন্তু তার বড় নৌকা চলার মতো পর্যাপ্ত পানি না থাকায় নৌকা দুটি শুকনায় পড়েছে। এতে করে বন্ধ হয়েছে তার আয়ের পথ।

রৌমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক জানান, চিলমারী নৌবন্ধব, ফুলুয়ারচর ঘাট, মদাব্যাপারীর ঘাট, চাক্তাবাড়ি ঘাট, কুটির চর ঘাট, রাজিবপুর নৌঘাট এর চ্যানেল রুট পরিবর্তন হয়ে প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। এতে স্থানীয় নৌরুট সংশি¬ষ্টদের রুজিরোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। যাত্রীরা পড়েছে মারাত্মক সমস্যায়। আর যে কয়টি রুট চালু আছে সেপথ দিয়েও নৌকা চলাচল করছে চার গুণ পথ বেশি ঘুরে ঘুরে। রাজিবপুর ঘাটের সদর উদ্দিন জানান, এই ঘাটে আসতে প্রায় ২ কিলোমিটার পথ যাত্রীদের পায়ে হেটে যেতে হচ্ছে। ফলে লোকজন কমে যাচ্ছে।

জানা যায়, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে এই অঞ্চলের নদ-নদীর উপর। ক্রমাগত নদীভাঙ্গনের ফলে নদীগুলোর নাব্যতা হ্রাসের ফলে স্বাভাবিক গতিপ্রকৃতি হারিয়ে ফেলছে এসব নদী। আর এর প্রভাব পড়ছে জনজীবনে। নানা ধরণের দুর্ভোগ নিয়ে নৌ পথে চলাচল করতে হচ্ছে নৌপথে চলাচলকারী মানুষজনকে।

(আরএ/এএস/ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৪)

পাঠকের মতামত:

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test