E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

ঝালকাঠি প্রেসক্লাব নির্বাচন

সভাপতির ভোটার বৈধতার সুরাহা না করায় পরিচালক আনু বিতর্কিত

২০২২ জানুয়ারি ০৭ ১৭:৫৪:৪০
সভাপতির ভোটার বৈধতার সুরাহা না করায় পরিচালক আনু বিতর্কিত

এমদাদুল হক স্বপন, ঝালকাঠি : ঝালকাঠি প্রেসক্লাব সভাপতি চিত্ত রঞ্জন দত্তের পত্রিকার নিয়োগ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কারন যে পত্রিকার নিয়োগ দিয়ে ভোটার হয়েছেন তিনি ঐ পত্রিকায় নেই। অনেক আগেই অন্য একটি পত্রিকায় ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসাবে যোগদান করেন। বিষয়টি জানিয়ে যথাযথ ব্যবস্তা নেয়ার জন্য পত্র দিয়েছেন প্রেসক্লাবের অপর সদস্য ঝালকাঠি বার্তা পত্রিকার সম্পাদক মাহবুবুল আলম। কিন্তু তার কোন ব্যবস্থা না নিয়ে ক্লাবের সাধারন সম্পাদক আক্কাস সিকদার ও নির্বাচন পরিচালক আনোয়ার হোসেন আনু চিত্ত রঞ্জনকে ভোটারের বৈধতা দিয়েছেন। তাই প্রশ্ন উঠেছে কি ভাবে চিত্ত রঞ্জন ক্লাবের সভাপতি হয়ে তিনি তার অনিয়মকে সমর্থন করেন এবং আসন্ন নির্বাচনের ভোটার হলেন। এ প্রশ্নের সূত্র ধরেই বিতর্কিত হয়েছেন ক্লাবের সাধারন সম্পাদক ও নির্বাচন পরিচালক দুজনই।  

ইতিমধ্যেই ক্লাবের সাধারন সম্পাদক আক্কাস সিকদারের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের একটি মামলায় সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে চার্জশীট দিয়েছে পিবিআই। মামলাটির বাদী সাংবাদিক বশির আহমেদ। এছাড়া বর্তমান সরকারের স্বরাষ্ট্র ও সেতু মন্ত্রীকে নিয়ে ফেসবুকে কুরুচি মন্তব্য করায় একই আইনে পৃথক মামলা দায়ের করা হয়। ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষে সাংগঠনিক সম্পাদক শারমিন মৌসুমি কেকা এ মামলার বাদী হন। এ ছাড়াও স্বার্থ হাসিলসহ নানা অনিয়মের মাধ্যমে সাংবাদিকদের স্বার্থ বিরোধী কাজ করে প্রেসক্লাবের সুনাম ক্ষুন্ন করার অভিযোগ উঠেছে আক্কাস সিকদারের বিরুদ্ধে। এ অবস্থায় আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে তিনি কেন সভাপতির বৈধ নিয়োগ না থাকা সত্বেও বিষয়টি সুরাহার উদ্যোগ নেননি তা সর্বমহলে পরিস্কার।

চিত্ত রঞ্জন দত্তকে ভোটার করার বিষয়ে এক পত্রের জবাবে ঝালকাঠি বার্তা পত্রিকার সম্পাদক মাহবুবুল আলম বলেন, আমার ব্যর্থতা থাকতেই পারে। কিন্তু সকল সদস্যদের নির্বাচন সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের কপি সরবরাহ করা হলেও আমাকে তা দেয়া হয়নি। তাই খসড়া ভোটার তালিকা সম্পর্কে আমি অবগত হতে পারিনি। চিত্ত রঞ্জন দত্তের ভোটারের বিষয়ে যথা সময়ে আমি আপত্তি জানাতে পারিনি। এছাড়াও কোন পত্রিকার সম্পাদক কারো নিয়োগ বাতিল করলে প্রেসক্লাবকে জানাতে হবে এমন কথা হাস্যকর।

সম্পাদক মাহবুবুল আলম আরো জানান, চিত্ত রঞ্জন দত্তের নিয়োগ বাতিলের বিষয়টি আমার জানা নেই’ ক্লাব সম্পাদকের এমন মন্তব্য মোটেই যুক্তি সংগত নয়। এর প্রমান স্বরুপ আরেকটি মিডিয়ায় যোগদান করা পত্রিকা ৮ জুলাই ২০২১ তারিখ আক্কাস সিকদার, ঐ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পদক হিসেবে চিত্ত রঞ্জন এবং প্রকাশক আনুষ্ঠানিক ভাবে জেলা প্রশাসকের হাতে তুলে দেন। ভূয়া ভোটার সাজিয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে এই ক্লাবে আধিপত্য বিস্তার করে ফায়দা হাসিলের প্রমান আর কি হতে পারে এমটাই মন্তব্য সচেতন মহলের।

ঝালকাঠি নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর বলেন, ঝালকাঠি প্রেসক্লাবে সিন্ডিকেট করে যে বা যারা বিতর্কিত করেছে তাদের ডাকে ঐ নির্বাচনের পরিচালক হয়ে আনু ভাইও বিতর্কিত হলেন।

ঝালকাঠি বার্তা’য় না থেকেও ঐ পত্রিকার নামে ভোটার হলেন কিভাবে এমন প্রশ্নের জবাবে চিত্ত রঞ্জন দত্ত বলেন, আমি আপাতত কোন মতামত দিব না। এ প্রসঙ্গে চিঠি চালাচালি হয়ে গেছে। আমার বক্তব্য পরে জানাব। নির্বাচন পরিচালক আনোয়ার হোসেন আনু জানান, নির্বাহী পরিষদ আমাকে যে তালিকা দিয়েছে আমি সে তালিকায় নির্বাচন করছি।

এ তালিকা যাচাইয়ের দায়িত্ব আপনার আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সম্পাদককে বলে ছিলাম সংশোধনী দেয়ার জন্য। তিনি বলেছে এ বিষয়ে আমাকে অবগত করে আপনাকে অনুলিপি দিয়েছে। আমি পত্রের জবাব দিয়েছি।

(এস/এসপি/জানুয়ারি ০৭, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৯ জানুয়ারি ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test