E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

৬ দফা দাবিতে পাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ-ভাংচুর, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

২০১৮ নভেম্বর ০৬ ০০:১০:৩৯
৬ দফা দাবিতে পাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ-ভাংচুর, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

পাবনা প্রতিনিধি : পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ৬ দফা দাবীতে ক্লাস বর্জন করে প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এসময় ভাইস চ্যান্সেলর প্রশাসনিক ভবন থেকে বের হয়ে বাস ভবনে চলে যান। পরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ভিসির বাস ভবনও অবরুদ্ধ করে রাখেন। 

সোমবার (৫ নভেম্বর) পাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে এঘটনা ঘটেছে। সোমবার সকাল সাড়ে ১১ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ক্যাম্পাসের প্রবেশের মূল ফটক ও প্রশাসনিক ভবন আটকিয়ে ছয় দফা দাবী আদায়ের জন্যে বিক্ষোভ প্রর্দশন করছে সাধারন শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওবায়দুল হক জানান, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের বিষয়টি প্রশাসন আমাদের অবহিত করলে সেখানে এসআই মনিরের নেতৃত্বে একটি দল পাঠানো হয়েছে। তবে আইন শৃংখলা স্বাভাবিক আছে বলেও তিনি দাবী করেন।

একাধিক শিক্ষার্থীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমরা বিশ্ববিদ্যাল প্রশাসনের নিকট ছয় দফা দাবী করে আসছি, দাবী মেনে নেবেন বলে আশ^াসও দিয়েছেন। আথচ গত ৩/৪ মাস অতিবাহিত হলেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোন প্রকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করেন নাই। ইতিপূর্বেও আমরা ক্যাম্পাসে দীর্ঘদিন ধারাবাহিক ভাবে আমাদের দাবী আদায়ের লক্ষে আন্দোলন করেছি। প্রতিবার আমাদের আশ্বাস দিয়ে আন্দোলন থামিয়ে দিয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও আমাদের দাবী বাস্তোবায়িত হয়নি।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো: ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষসহ পরবর্তী সকল ব্যাচ সমূহের অডিন্যান্সের আওতাভুক্ত করা, হলের ডাইনিংয়ের খাবার উন্নয়নের জন্য ভর্তূকি প্রদান, ক্লাস রুম ও চেয়ার সংকট দূর করা, পরিবহন সংকট, ক্যাম্পাসে ওয়াইফাই এর ব্যাবস্থা করা এবং শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপনের দাবী শিক্ষার্থীদের।
এ বিষয়ে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. রোস্তম আলীর জানান, প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেছিলো ছাত্ররা। এ সময় আমি প্রশাসনিক ভবন থেকে বের হয়ে বাস ভবনে চলে আসি। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের চেয়ারম্যান ও ডীনদের নিয়ে জরুরী বৈঠক শেষে দশ শিক্ষার্থী বহিস্কারের খবর ছরিয়ে পরলে সন্ধায় ছাত্ররা ক্যাম্পাস এলাকায় বিক্ষোব ও ভাংচুর চালায় পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

পাবনা সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এবনে মিজান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছাত্ররা তাদের দাবী নিয়ে আন্দোলন করছেন। ভিসি স্যারের সাথে আমার কথা হয়েছে তিনি বৈঠকের মাধ্যমে সম্যার সমাধান করবেন। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

(পিএস/এসপি/নভেম্বর ০৫, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

১৩ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test