Pasteurized and Homogenized Full Cream Liquid Milk
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

বেরোবির প্রশাসনিক ভবনে কর্মচারীদের ফের তালা, দিনভর উত্তেজনা

২০১৯ জুলাই ০৮ ২২:৫৯:২৫
বেরোবির প্রশাসনিক ভবনে কর্মচারীদের ফের তালা, দিনভর উত্তেজনা

রংপুর প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মচারিদেও উপর হামলার বিচার এবং তিন দফা দাবিতে কর্মবিরতি ও অবস্থান কর্মসূচীর ১২ দিনের মাথায় প্রশাসনিক ভবনে আবারও তালা দিয়েছে কর্মচারিরা। সোমবার বেলা ১১টার দিকে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার পর প্রক্টোরিয়াল বডির নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন শিক্ষক. পুলিশ ও আনসার সদস্যরা তালা ভাঙতে যায়। 

এ সময় আন্দোলনকারীরা উত্তোজিত হয়ে উঠেন এবং উভয়পক্ষ মারমুখি অবসস্থান নেয়। পরে বিকেল ৫টায় কর্মচারিরা তালা খুলে দিলেও মঙ্গলবার আবারও তালা ঝোলানোর ঘোষণা দিয়েছে। এ নিয়ে দু’পক্ষের মাঝে চলছে উত্তেজনা। এর আগে রোববার আন্দোলনকারীরা রেজিষ্ট্রার আবু হেনা মোস্তফা কামালসহ ওই দফতরের অনেককে আটকে তালা ঝুলিয়ে কর্মবিরতি পালন করেছে তিন শতাধিক কর্মচারি।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সোমবার বেলা ১১টার দিকে কর্মচারি সমন্বয় পরিষদের ব্যানারে আন্দোলনরত কর্মচারিরা প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে টানা ১২ দিনের মত কর্মবিরতির ঘোষনা দিয়ে অবস্থান নেয়। ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আতিউর রহমানের নেতৃত্বে প্রক্টরিয়াল বডির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, ৪০/৫০ জন শিক্ষক. সাজোয়া পুলিশ ও আনসার সদস্যরা তালা ভাংতে গেলে রড হাতে বহিরাগত লোকজন সেখানে জড়ো হয়।

এ সময় আন্দোলনরত কর্মচারিদের সাথে প্রশাসনের বাকবিতন্ডা হয়। সেখানে মুখোমুখি অবস্থান নেয় দুই পক্ষ। এ অবস্থা বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলার পর তালা খুলে দিয়ে চলে যায় কর্মচারিরা। কর্মচারি নেতারা জানান, তালা লাগানো অবস্থায় রেখে গেলে প্রশাসনিক ভবনের কোন ক্ষয়ক্ষতি হলে আমাদের উপর দায়ভার আসতে পারে। তাই তালা খুলে দেয়া হয়েছে। তবে তারা জানানম তাদের দাবি না মানা পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত তালা লাগানো থাকবে একই সঙ্গে তাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

কর্মচারীদের অভিযোগ, আন্দোলন চলাকালীন সময়ে দুই বার কর্মচারিদের সঙ্গে নামমাত্র বৈঠক হলেও প্রক্টোরিয়াল বডির পক্ষ থেকে তাদের দাবি পুরণের ব্যাপারে কোন আশ্বাস না পাওয়ায় তারা বারবার তালা লাগাতে বাধ্য হচ্ছেন। এদিকে কর্মচারিদের দাবি পুরণের বিষয় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত কোন উদ্যেগ নেয়া হয়নি। এ অবস্থায় গত সোমবার থেকে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পরিবহনের গাড়িগুলো চলাচল বন্ধ করে কর্মসূচী পালন করছে আন্দোলনরত কর্মচারিরা।

তবে জরুরী এ্যাম্বুলেন্স ও শিক্ষার্থীদের পরিবহনের বাস যথারীতি চালু আছে। কর্মচারি সমন্বয় পরিষদের প্রধান সমন্বয়কারী মাহবুবার রহমান বাবু জানান, দাবি পুরণে শুধু আশ্বাস দিলে চলবে না। দ্রুত এর বাস্তবায়ন চাই। নইলে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

অন্যদিকে ইউনিয়নের সভাপতি নুর আলম জানান, আমাদেরকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। আমাদের উপর হামলা হয়েছে। আমরা এসবেরও বিচার চাই। সার্বিক বিষয় নিয়ে প্রক্টরের চলতি দায়িত্বে থাকা আতিউর রহমান এবং উপাচার্য প্রফেসর ড.নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহকে ফোন করলে পাওয়া যায় না।

(এম/এসপি/জুলাই ০৮, ২০১৯)

পাঠকের মতামত:

১৬ জুলাই ২০১৯

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test