E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

বইমেলায় সাইফুর রহমান সোহাগের 'ছাত্রলীগের ইতিহাস বাংলাদেশের ইতিহাস'

২০১৭ ফেব্রুয়ারি ১৬ ১৫:০৯:২২
বইমেলায় সাইফুর রহমান সোহাগের 'ছাত্রলীগের ইতিহাস বাংলাদেশের ইতিহাস'


নিউজ ডেস্ক : একুশে বইমেলায় আজ বৃহস্পতিবার থেকে পাওয়া যাবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের বই 'ছাত্রলীগের ইতিহাস বাংলাদেশের ইতিহাস'। বইটি শব্দশৈলী প্রকাশনীর স্টলে পাওয়া যাবে। এছাড়া ছাত্রলীগের স্টল মাতৃভূমিতেও বইটি পাওয়া যাবে।

সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে বেড়ে ওঠা ঐতিহ্যবাহী এ সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই ছাত্রলীগের ইতিহাসকে বাঙালির ইতিহাস বলে আখ্যায়িত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাও ছাত্রলীগের ইতিহাসকে বাংলাদেশের ইতিহাস বলে অভিহিত করেছেন। বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির গৌরব এবং সাফল্যের ইতিহাস জানতে হলে অবধারিতভাবেই জানতে হবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ইতিহাসও। আর শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সঙ্গে তরুণ প্রজন্মকে ছাত্রলীগের গর্বিত ইতিহাস সম্পর্কে অনুপ্রাণিত করতেই এই বই।

তিনি বলেন, পড়াশোনার বিকল্প নেই, পড়াশোনাই একজন শিক্ষার্থীর প্রধান কাজ। সেই সঙ্গে শিল্প-সাহিত্য চর্চা ও দেশের ইতিহাস আমাদের জানতে হবে। আপনারা জানেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও অনেক বই লিখেছেন। এত ব্যস্ততার মাঝেও উনি সময় বের করে লেখালেখি করেন, এটা আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে ছোটবেলা থেকেই ছাত্রলীগের কর্মী হয়েছিলেন সাইফুর রহমান সোহাগ। তার কথায়, ‘শুরু থেকেই আমি জানার চেষ্টা করেছি সংগঠনটির জন্ম, পথচলা, বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে এ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের অবদান সম্পর্কে। নিয়মিত পড়াশোনা ও রাজনীতির পাশাপাশি প্রাণের সংগঠন ছাত্রলীগের অতীত ইতিহাস সম্পর্কে জানার চেষ্টা করেছি। আমার খুব ইচ্ছে ছিল- এ সংগঠন সম্পর্কে আমার অর্জিত জ্ঞানটুকু একটি বই আকারে ছাত্রলীগের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে চেয়েছি।’

বইটি লিখতে বিস্তর পড়াশোনাও করেছেন সোহাগ। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী থেকে শুরু করে বিভিন্ন সময় প্রকাশিত বিভিন্ন লেখা নিয়ে করেছেন চুলচেরা বিশ্লেষণ। তিনি বলেন, ‘৬৯ বছরের পথ পরিক্রমায় ঐতিহাসিক এই সংগঠনের ইতিহাস নিয়ে অনেক কাটাছেঁড়া হয়েছে, অনেক সময় বিভ্রান্তিও ছড়িয়েছে। সেইসব ভ্রান্তি ছেঁটে ইতিহাসের প্রকৃত আখ্যান প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় তুলে আনার চেষ্টা করেছি এই বইতে।'

মহান মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রলীগের ১৭ হাজার নেতাকর্মী জীবন দিয়েছেন। ৫২’র ভাষা আন্দোলনে শহীদ হয়েছেন অনেক নেতা-কর্মী। ছাত্রলীগের অবদান সবার জানা উচিৎ বলে মনে করেন ছাত্রলীগ সভাপতি। সংগঠনটির এই সোনালী অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ছাত্রাবস্থায় এ সংগঠনের কর্মী ছিলেন। ছাত্রলীগ কর্মী হিসেবে ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সক্রিয় অবদানসহ সংগঠনটির নানা ঘটনাবলি ও ইতিহাস নিয়ে বইটি প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠার পর ১৯৪৮ সাল থেকে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত ছাত্রলীগের উত্থান পতনের নানা ঘটনা ঠাঁই পেয়েছে এই বইতে।

বইটি সাইফুর রহমান সোহাগের লেখা প্রথম বই। প্রচ্ছদে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। সোহাগ বলেন, ‘আমার ক্ষুদ্র প্রয়াস বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠনটির ইতিহাস যারা পড়বেন, তারা জানতে পারবেন ছাত্রলীগ কিভাবে জন্মের পর থেকে সকল আন্দোলন-সংগ্রামে সফল হয়েছে। বইটি পড়লে আমার বিশ্বাস সবাইকে ভাল লাগবে। আর সবার ভাল লাগাই হবে আমার চলার পথে অনুপ্রেরণা।’

(ওএস/এএস/ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

১৭ নভেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test