E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Technomedia Limited
Mobile Version

রাজারহাটে আগাম ‘ব্রিধান-৭৫’ জাতের ধানের বাম্পার ফলন

২০২৩ অক্টোবর ১৯ ১৬:১০:৪৩
রাজারহাটে আগাম ‘ব্রিধান-৭৫’ জাতের ধানের বাম্পার ফলন

প্রহলাদ মন্ডল সৈকত, রাজারহাট : চলতি আমন মৌসুমে কুড়িগ্রামের রাজারহাটে আগাম ‘ব্রিধান-৭৫’ জাতের ধান রোপন করে বাম্পার ফলন পেয়েছে কৃষকরা। এটি একটি আগাম জাতের ধান। এ জাতের ধান শুরু থেকে কাটা পর্যন্ত মোট ১১০দিন সময় লাগে। এ ধান উত্তোলনের পর রবি ফসল সরিষা, আলু, বেগুন-মূলাসহ শাকসবজির আবাদ করা যায়। পাশাপাশি অমৌসুমে ধান কাটায় গোখাদ্য হিসেবে ধানের খড়ের চাহিদা বাড়বে, সেই সাথে বেশী দাম পাবেন কৃষকরা।

জুলাইয়ের শেষের দিকে ধান রোপন করে অক্টোবরের শেষের দিকে ঘরে ধান তোলা যায়। যা প্রায় একমাস আগেই ব্রিধান-৭৫ ধান উঠছে কৃষকের ঘরে। তাই আগাম ব্রিধান-৭৫ জাতের ধান কৃষকরা রোপন করছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়। কারণ উচ্চফলনশীল হওয়ায় এবছর জাতটির ফলনও হয়েছে বেশ ভালো ও সুগন্ধি। কম সময়ে চাষ করা গেছে বলে খরচও হয়েছে অনেক কম। তাই ব্রিধান-৭৫ ধান এরই মধ্যে জনপ্রিয়তা পেয়েছে এ এলাকায়।

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) সরেজমিনে দেখা যায়, এসব জাতের একরে ফলন প্রায় ৫০/৫৫ মণ। যা আমনে চাষ হওয়া অন্য গতানুগতিক জাতের মত। পাশাপাশি স্বল্প সময়ের কারণে দ্রুত ধান কেটে রবিশস্যের চাষ করা যাচ্ছে একই জমিতে, যে জমি আগে ইরি-বোরো পর্যন্ত অনাবাদি থাকতো। এ জাতটির কারণে পতিত জমি না থাকায় বেশি লাভবান হচ্ছেন কৃষক।

এ বিষয়ে উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুধখাওয়া মৌজার কৃষক আলহাজ্ব ফজলুল হক মন্ডল( ৬৭) বলেন, এক হেক্টর জমিতে ব্রিধান-৭৫ জাতের ধান চাষ করেছি এবছর। ফলন হয়েছে বেশ ভাল। আশা করছি, হেক্টর প্রতি প্রায় ১২৫ থেকে ১৩০ মণ ধান উৎপন্ন হবে। আর দু’একদিনের মধ্যে ওই জমির ব্রিধান-৭৫ জাতের ধান কাটা পড়বে। এর পর আমি ওই জমিতে আলু এবং সরিষা চাষ করবো।

প্রথম এ ধান রোপন করা নিয়ে তিনি আরো বলেন, এ জাতের ধান চাষে প্রথমবার ধান রোপনের সময় জমি তৈরি করতে একবার সেচ দিয়েছি, এর পর বৃষ্টির কারণে আর সেচ দেয়া লাগে নাই। ফলন ভাল হওয়ার জন্য ওই জমিতে ৪৫ কেজি ইউরিয়া সার একবার ছিটানো হয়, ছত্রাক ও কীটনাশক দেয়া হয়েছে ২বার, যার খরচ গতানুগতিক আবাদের চেয়ে অনেক কম। অন্যান্য কৃষকদের সাথে ধান রোপনের পর আমার জমির ধান কাটা হচ্ছে আরো একমাস আগে। সে তুলনায় অন্যদের আরও ১-২টি সেচ দিতে হবে। তাদের খরচও অনেক বেশী হবে। একমাস পরিশ্রমও বেশি করতে হবে। আর আমি সে সময়ে আগাম আলু ও সরিষা চাষ করবো।

ব্রিধান-৭৫ জাতের ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় এলাকার সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এই কৃষক।
উপজেলা কৃষি অফিস জানান, রাজারহাট উপজেলায় এবছর ১১হাজার ৮৭০ হেক্টর জমিতে আমনের লক্ষমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। এর মধ্যে ব্রিধান-৭৫ জাতের ধান চাষ হয়েছে প্রায় ২৬০হেক্টর জমিতে। অক্টোবরের শেষ সপ্তাহের মধ্যে প্রায় সবগুলো এলাকায় শেষ হবে এ ধান কাটা।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোছাঃ সাইফুন্নাহার সাথী বলেন, ব্রিধান-৭৫ জাতের ধানসহ বেশ কয়েকটি জাত রয়েছে। যেগুলো গতানুগতিক ধান চাষের এক মাস আগে তোলা যায়। এ ধান ঘরে তুলেই তেল জাতীয় সরিষা, সূর্য্যমূখী সহ আগাম রবি শষ্য চাষ করা যায়। তাই এ জাতীয় ধান চাষ করতে উপজেলার কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

(পিএস/এসপি/অক্টোবর ১৯, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

০২ মার্চ ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test