E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‍‘মানবিক বিশ্ব গড়ে তুলুন’

২০১৭ সেপ্টেম্বর ২৩ ২৩:২৫:২১
‍‘মানবিক বিশ্ব গড়ে তুলুন’

সিলেট প্রতিনিধি : অক্টোবর বিপ্লব শতবর্ষ উদযাপন জাতীয় কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেছেন, আজ থেকে একশ বছর আগে ১৯১৭ সালের অক্টোবর মাসে রুশ দেশে যে বিপ্লব ঘটেছিল তা পৃথিবীকে চমকে ও বদলে দিয়েছে।

তিনি বলেন, একদিক দিয়ে নয়, বহুদিক দিয়ে। পরিবর্তন ঘটিয়েছে চিন্তায়, দৃষ্টিভঙ্গিতে, রাজনীতি, সংস্কৃতি, সমাজ ব্যবস্থায়, মানবিক সম্পর্কে এবং মানচিত্রে।

সমাজতান্ত্রিক রুশ বিপ্লবের শততম বার্ষিকী উদযাপন কমিটি সিলেটের উদ্যোগে শনিবার জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘সমাজতান্ত্রিক রুশ বিপ্লবের তাৎপর্য ও সমকালীন বিশ্বে এর প্রাসঙ্গিকতা’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সামাজিক মালিকানার মানবিক বিশ্ব গড়ে তুলতে হবে জানিয়ে অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, বহুকাল ধরে মানুষ সাম্য, মৈত্রী, ইনসাফের যে সমাজের স্বপ্ন দেখে এসেছে, অক্টোবর বিপ্লব সেই স্বপ্নকেই বাস্তবায়ন করার কাজ করেছে এবং তার মধ্য দিয়ে মানুষকে দিয়েছে আশা ও অগ্রযাত্রার পথের দিশা।

তিনি বলেন, ‘মুক্ত মানুষের মুক্ত সমাজ’ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় অক্টোবর বিপ্লব মানব সভ্যতায় সূচনা করেছিল এক নতুন যুগের জানিয়ে। মূলত, মার্কসবাদী তত্ত্ব ও মতাদর্শকে ধারণ করে অক্টোবর বিপ্লব পুঁজিবাদ ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী লড়াইয়ে নতুন মাত্রা যোগ করে, সৃষ্টি করেছিল বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের এক নতুন আন্তর্জাতিকতা। শতাব্দী পার হয়ে যাচ্ছে কিন্তু ওই বিপ্লবের ঐতিহাসিক তাৎপর্য একবিন্দুও মলিন হয় নি বরং বর্তমান বিশ্বেও গাঢ় অন্ধকারের পটভূমিতে তা আরও উজ্জ্বল ও প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে।

আলোচনাসভায় সভাপতিত্ব করেন সমাজতান্ত্রিক রুশ বিপ্লবের শততম বার্ষিকী উদযাপন কমিটি সিলেটের আহ্বায়ক বেদানন্দ ভট্টাচার্য এবং পরিচালনা করেন সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. আবুল কাশেম।

এতে আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্বাবদ্যালয় সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, ত্রৈমাসিক নতুন দিগন্ত পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক মযহারুল ইসলাম বাবলা।

আলোচনা সভায় অংশ নেন সিপিবি, জাসদ, বাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, গণতন্ত্রী পার্টি, ন্যাপ, সাম্যবাদী দল, বাসদ (মার্কসবাদী), সম্মিলিত নাট্যপরিষদ, উদীচী, যুব ইউনিয়ন, যুবমৈত্রী, নারী মুক্তি সংসদ, চারণ সংস্কৃতি কেন্দ্র, ছাত্র ইউনিয়ন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট, ছাত্রমৈত্রী, জাতীয় যুব ঐক্য, খেলাঘরসহ বাম প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। পরে উদীচীর পরিবেশনায় কমিউনিস্ট ইন্টারন্যাশনালসহ গণসংগীতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়।

(ওএস/এএস/সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test