E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

স্বাধীনতাবিরোধী ধর্মান্ধ মোল্লাদের বয়কট করুন : আবীর আহাদ

২০২০ নভেম্বর ২৪ ১৬:৫৮:৫৮
স্বাধীনতাবিরোধী ধর্মান্ধ মোল্লাদের বয়কট করুন : আবীর আহাদ

স্টাফ রিপোর্টার : একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদের চেয়ারম্যান আবীর আহাদ স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার ধর্মান্ধ মোল্লা অপশক্তিকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সামাজিক ধর্ম  ও প্রচার মাধ্যমে সম্পূর্ণভাবে বয়কটের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ধর্মব্যবসায়ী এসব তথাকথিত আলেম সমাজের ৯৯% ভাগ আমাদের মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে সরাসরি অবস্থান নিয়ে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীকে সহযোগিতা করেছে; শান্তিকমিটি রাজাকার আলবদর আলশামস আলমুজাহিদ ইত্যাকার সশস্ত্র বাহিনী গঠন করে পাকিসৈন্যদের সাথে শহর বন্দর গ্রামে ঢুকে ত্রিশ লক্ষ স্বাধীনতাকামি মানুষকে নির্বিচারে হত্যা, তিন লক্ষ নারীধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটযজ্ঞ চালিয়েছে; সোয়া কোটি মানুষকে দেশান্তরি করেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে-----অবশেষে তারা ন্যাক্কারজনক পরাজয় বরণ করেছে ।

আজ এক বিবৃতিতে আবীর আহাদ বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক অর্থনৈতিক ও ধর্মীয় কর্মকাণ্ডসহ প্রচার মাধ্যমে পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর ঐ সহযোগী ও তাদের উত্তরসূরি মোল্লাদের অংশগ্রহণের কোনোই অধিকার নেই । এরা বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, সংবিধান, জাতীয় সঙ্গীত, জাতীয় পতাকা, জাতির পিতা মানে না । তারা তাদের পরবর্তী প্রজন্মকেও তাদের অপ-আদর্শে দিক্ষিত করে একাত্তরের পরাজয়ের গ্লানিতাড়িত হয়ে আজও আমাদের মুক্তিযুদ্ধের পবিত্রতাকে কলুষিত করে চলেছে !

ধর্মের নামে তারা বাঙালি জাতিত্ব, ধর্মনিরপেক্ষতা, অসাম্প্রদায়িকতা, বাঙালির ইতিহাস ঐতিহ্য শিক্ষা সংস্কৃতি কৃষ্টি ইত্যাদি চেতনার বেদীমূলে কূপমন্ডুকতার বিষবাষ্প ছড়িয়ে গোটা সমাজ-রাষ্ট্রকে অন্ধকারের গহ্বরে নিক্ষেপ করছে । তাদের কী দু:সাহস, তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যকে গুড়িয়ে দিয়ে বুড়িগঙ্গায় ফেলে দিতে চায় ! তারা যত্রতত্র জ্ঞানী গুণী মুক্তিযোদ্ধা ও প্রগতিশীল মানুষকে তথাকথিত নাস্তিক ও মুরতাদ আখ্যায়িত করে, ধর্মপ্রাণ সাধারণ মানুষের ধর্মানুভূতিতে সুড়সুড়ি দিয়ে ফায়দা লুটার হীন কার্যকলাপে লিপ্ত হয়ে দেশের মধ্যে সাম্প্রদায়িক হানাহানির পরিবেশ সৃষ্টি করে চলেছে । অপরদিকে আমাদের দেশের আদর্শহীন বিভিন্ন রাজনৈতিক শক্তি ও প্রচারমাধ্যম ঐ স্বাধীনতাবিরোধী ধর্মান্ধ অপশক্তিকে তাদের অবস্থানে সংহত করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখে আসছে ! অথচ আমাদের মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীন দেশ একটি গণতান্ত্রিক, মানবিক মূল্যবোধ, অসাম্প্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষ, সমাজতান্ত্রিক ও বাঙালি জাতীয়তাবাদী শাসনতান্ত্রিক কাঠামোর ওপর দাঁড়িয়ে থাকলেও রাজনৈতিক ও প্রচারমাধ্যমশক্তি ঐ স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিকে একধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে যা খুবই দু:খজনক । এটা আর চলতে দেয়া যায় না ।

আবীর আহাদ বলেন, আমাদের দেশের রাজনৈতিক দল বিশেষ করে বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত-চরমোনাই সহ অন্যান্য ধর্মান্ধ অপশক্তি আজ ধর্মের উন্মাদনা সৃষ্টি করে দেশে গৃহযুদ্ধ বাঁধানোর উস্কানি দিয়ে আসছে । ইদানীং বিশেষ করে স্বাধীনতাবিরোধী হেফাজত অপশক্তি বিএনপি ও জামায়াতের সাথে গোপন যোগাযোগ রেখে মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনাকারী আওয়ামী লীগের সাথে প্রকাশ্যে একটি সখ্যতা গড়ে তুলে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং বাঙালি জাতির ইতিহাস ঐতিহ্য শিক্ষা সংস্কৃতির ওপর চরম আঘাত হানার দু:সাহস দেখাচ্ছে যা মুক্তিযুদ্ধের বাঙালি জাতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল ।

তিনি বলেন, এ অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধের মূলধারায় বিশ্বাসী সব রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক ও মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনসহ জাতীয় প্রচারমাধ্যমকে এক্ষণি এ সিদ্ধান্তে উপনীত হতে হবে যে, বাঙালি জাতির কষ্টার্জিত স্বাধীনতা ও বাঙালি জাতীয়তাবাদী চেতনার স্বার্থে কোনো অবস্থায় আর ঐ সব স্বাধীনতাবিরোধী ধর্মান্ধ অপশক্তিকে প্রশ্রয় দেয়া যাবে না-----বিশেষ করে জাতীয় প্রচারমাধ্যমে তাদের উপস্থিতিসহ তাদের প্রচারণাকে সম্পূর্ণভাবে বয়কট করতে হবে ।

(এ/এসপি/নভেম্বর ২৪, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

২০ জানুয়ারি ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test