E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‘মুজিবনগর সরকার কোন অস্থায়ী নয়, প্রথম সরকার’

২০১৬ এপ্রিল ১৭ ১৭:০৭:০৬
‘মুজিবনগর সরকার কোন অস্থায়ী নয়, প্রথম সরকার’

মো: মনিরুল ইসলাম মনির, মেহেরপুর : মুজিবনগর সরকার কোন অস্থায়ী নয়, প্রথম সরকার। ঐতিহাসিক মুজিবনগর সরকারের ঘোষণাপত্রেই পরবর্তীতে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের সংবিধান রচিত হয়েছে। কেননা এই মুজিব নগর সরকারের অধীনেই স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছিল।

রবিবার ১৭ এপ্রিল মেহেরপুর ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, ঐতিহাসিক মুজিব নগর সরকারের শপথ অনুষ্ঠানে মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের শপথ বাক্য পাঠ করিয়েছিলেন অধ্যাপক ইউসুফ আলী। ঘোষণা পত্রের অংশই হলো আজকের বাংলাদেশের সংবিধান। তাই মুজিব নগর সরকারের ইতিহাস আমাদের জানতে হবে, ইতিহাস না জেনে কোন কিছু বলা ঠিক হবেনা। মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলা আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সূর্য উদিত হয়েছিল।

ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে সকাল সাড়ে ১০টায় মুজিবনগর আম্রকাননে শেখ হাসিনা মঞ্চে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেন, আওয়ামীলীগ আন্দোলনে কোন ভয় পায়না। পরাজিত অপশক্তিকে রুখে দিতে হবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলেছে। ২০১৯ সালের মধ্যেই দেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশের উন্নয়ন বিদেশীদের তাক লাগিয়ে দিয়েছে।


বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার, কেন্দ্র আন্তজার্তিক বিষয়ক সম্পাদক লেঃ কর্ণেল (অবঃ) ফারুক আহমেদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এবিএম তাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডাঃ বদিউজ্জামান ডাবলু, শ্রম সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, রংপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ চৌধুরী, হুইপ সোলাইমান হক জোয়ার্দার সেলুন এমপি, মেহেরপুর-১ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফরহাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক, মো: মকবুল হোসেন এমপি, সংরক্ষিত আসনের এমপি সেলিনা আক্তার বানু, জেলা পরিষদের প্রশাসক মিয়াজান আলী, মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জিয়াউদ্দিন বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় যুব নেতা আসাদ উল্লাহ আসাদ, কেন্দ্র ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এম জাকির হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক।

আরো উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা, স্থানীয় এমপি এবং আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীসহ খুলনা বিভাগীয় নেতৃবৃন্দ। সকাল থেকেই বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে উপস্থিত হাজার হাজার নারী-পুরুষের কণ্ঠে উচ্চারিত হতে থাকে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ ‘মুজিবের বাংলায়, খুনিদের ঠাঁই নাই’ এসব শ্লোগানে এলাকা মুখরিত হয়ে ওঠে।

এর আগে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে মুজিবনগর স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৮টায় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, গার্ড অব অনার প্রদান ও কুচকাওয়াজ প্রদর্শিত সকাল ৯টায় আনসার ও ভিডিপির আয়োজনে ‘হে তারুণ্য, তুমি দাঁড়াও’ শীর্ষক শিরোনাম উপস্থাপনা।

বিকেলে মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে শিল্পী ফকির আলমগীর, ফরিদা পারভীন, আখি আলমগীর, নুকুল কুমার সহ বিভিন্ন শিল্পীদের উপস্থিতিতে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

(এমএম/এএস/এপ্রিল ১৭, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test