E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

‘মাদ্রাসা যেন জঙ্গিবাদের সমর্থক না হয়, সেটা দেখার দায়িত্ব শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের’

২০১৭ জানুয়ারি ১৪ ১৮:২১:৪৬
‘মাদ্রাসা যেন জঙ্গিবাদের সমর্থক না হয়, সেটা দেখার দায়িত্ব শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের’

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ বলেছেন, মাদ্রাসা যেন জঙ্গিবাদের সামর্থক না হয়ে যায় সেটা দেখার দায়িত্ব শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। এখানে পবিত্র কোরআনের অপব্যাখ্যা করে যেভাবে একদল জঙ্গি আমাদের ইসলামকে কলুষিত করছে, রক্তাক্ত করছে, সে বিষয়টাও আমাদের ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিতদের খেয়াল রাখতে হবে।

তিনি আজ শনিবার দুপুরে গোপালগঞ্জ ছালেহিয়া কামিল মাদ্রাসায় ল্যাপটপ ও কম্পিউটার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

র‌্যাব ডিজি বলেন, ইসলাম এখন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। গোষ্ঠি স্বার্থ ও গোষ্ঠি চিন্তা বাদ দিয়ে আল্লাহকে সবচেয়ে বড় ও ধর্মকে বড় চিন্তা করে আমাদের মধ্যে ঐক্য তৈরী করতে হবে।সেই ঐক্যের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী যে ইসলামের বিরুদ্ধে যড়ষন্ত্র হচ্ছে তা মোকাবেলা করতে হবে।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ হলো একটি বিজাতীয় ধর্ম। আমাদের দেশের মানুষ হচ্ছে শান্তি প্রিয়। জঙ্গিরা সড়কে, গাড়িতে, মার্কেটসহ বিভিন্ন জায়গায় বোমা ফাটিয়ে মানুষ মারছে। কিন্তু তারা জানে কেন তারা মারা গেল।তাই জঙ্গি বিরুদ্ধে আমাদের ঘৃণা বাড়াতে হবে, আমি মনে করি এটা ইসলামের বিরুদ্ধে যড়ষন্ত্র। এটা বৈশ্বিক ষড়যন্ত্র।এই ষড়যন্ত্র আমাদের দেশীয়ভাবে এবং আন্তর্জাতিকভাবে মোকাবেলা করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, পবিত্র কোরআনে ১৬৪ আয়াতে জিহাদের কথা বলা হয়েছে, কিন্তু এ জিহাদ কোন জিহাদ, সে ব্যাখ্যা ইসলামী শিক্ষায় শিক্ষিতদের দিতে হবে। শিক্ষার্থীদের ভুল ব্যাখা দিয়ে হত্যা, খুন, রক্তপাতে দিক্ষিত করা হচ্ছে। ইসলাম কি হত্যা, রক্তপাতের ধর্ম, ইসলাম কি খুনের ধর্ম, ইসলাম মানেই তো শান্তি। আর এই শান্তিকে হাইজ্যাক করে অন্যদের কাছে চলে যাওয়ার উত্তর ও দায়িত্ব নিতে হবে ইসলামী চিন্তাবীদদের।
মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে। শিক্ষা ব্যবস্থা যুগোপযোগী হওয়া উচিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অর্থনৈতিক কর্মযজ্ঞ চলছে, সেই বিশাল কর্মযজ্ঞে অংশ গ্রহনের জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তোলা হওয়া উচিত। আর এটা সকল শিক্ষা ব্যবস্থার লক্ষ্য হতে হবে। মাদ্রাসায় শিক্ষা গ্রহনকারীদের হাদিস-কোরআনের পাশাপাশি যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। যাতে তাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা যায়।

তিনি আরো বলেন, যদি কেউ কম্পিউটার না জানে তাহলে বর্তমানে সে অশিক্ষিত। আর সামনে দিকে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সব কিছু আরো বেশি বেশি করে আইটি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হবে।তাই যারা মাদ্রাসায় পড়াশোনা করছে তাদের আইটি শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।তা না হলে এরা প্রান্তিক জনগোষ্ঠি হবে। আর তখনই এরা অর্থনৈতিক ও সামাজিকভাবে কোনঠাসা হবে এবং জঙ্গিবাদ বা এ বিষয়গুলো এদের মধ্যে প্রবেশ করবে। তখন এটা হবে তাদের প্রতবাদের মাধ্যম। পড়াশোনা শিখে যখন তারা কিছু করতে পারে না তখন এরা বিপথে যায়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ মোমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে রাখেন পুলিশ সুপার এসএম এমরান হোসেন ও মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা জালাল উদ্দিন।এসময় গোপালগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কাজী লিয়াকত আলী লেকু, র‌্যাব-৮ কমান্ডার কর্ণেল আনোয়ার, পরিচালক আইন ও গণ মাধ্যম মুফতি মাহমুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

(পিএম/এএস/জানুয়ারি ১৪, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test