E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

করোনার চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনেই ফিরল ডব্লিউএইচও

২০২০ জুন ০৪ ১৩:৫৪:২৬
করোনার চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনেই ফিরল ডব্লিউএইচও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার পর কোভিড-১৯ চিকিৎসায় আবারও হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের অনুমতি দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। ম্যালেরিয়ার এই ওষুধ ব্যবহারে করোনা রোগীদের মৃত্যুর হার বাড়ে এমন কোনও প্রমাণ না পাওয়াতেই এর ট্রায়াল ফের চালুর অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস।

গত ২৫ মে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনকে করোনা রোগীদের জন্য বিপজ্জনক বলে জানিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এমনকি এর সবধরনের পরীক্ষামূলক ব্যবহারেও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল তারা। বুধবার সেই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নিয়েছে সংস্থাটি।

গেব্রিয়েসুস জানিয়েছেন, তাদের এক্সিকিউটিভ দল গত সপ্তাহে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ট্রায়াল সাময়িক বন্ধ রাখার নির্দেশ দিলেও মৃত্যুর হার পর্যালোচনা করে তারা ফের এই ওষুধের পরীক্ষামূলক ব্যবহারে সম্মতি দিয়েছে।

ডব্লিউএইচও প্রধান জানিয়েছেন, তাদের বিশেষজ্ঞ দল হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের তথ্য পর্যবেক্ষণ করছিল। এজন্যই এতদিন এর ব্যবহার বন্ধ রাখতে বলা হয়েছিল। তাদের সবশেষ প্রতিবেদনে ট্রায়াল বন্ধ রাখার কোনও কারণ পাওয়া যায়নি।

এর আগে, জাতিসংঘের এই স্বাস্থ্য সংস্থাটি জানিয়েছিল, হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন করোনা রোগীদের মধ্যে মৃত্যুর ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলতে পারে। দ্য ল্যানসেট মেডিকেল জার্নালে প্রকাশিত একটি সমীক্ষার ওপর ভিত্তি করেই এ তথ্য জানিয়েছিল তারা।

এর পরপরই ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রেও স্বল্প পরিসরে ট্রায়াল বাদে করোনার চিকিৎসায় এর ব্যবহার বন্ধ করে দেয়া হয়।

তবে আগের সেই ঘোষণা থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ব্যবহারের পর রোগীদের স্বাস্থ্য নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। তাই সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবেই এটি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু গত এক সপ্তাহে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর হার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, এই পদ্ধতিতে পরিবর্তনের কোনও প্রয়োজন নেই। এ কারণে ফের এর ট্রায়ালের অনুমতি দেয়া হয়েছে। এনডিটিভি।

(ওএস/এসপি/জুন ০৪, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

০৩ জুলাই ২০২০

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test