নোয়াখালী প্রতিনিধি : আগামী তিন মাসের মধ্যে নোয়াখালী বিমান বন্দরের সম্ভব্যতা যাচাই বাচাই পূর্বক রিপোর্ট প্রদানের জন্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল।

নির্বাচনের আগেই নোয়াখালী বিমানবন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে, দেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল, এ উন্নয়নকে বানচাল করার জন্য একটি মহল কাজ করছে নোয়াখালীর প্রস্তাবিত বিমানবন্দরের জমি পরিদর্শনে এসে বিশাল জনসভায় এসব কথা বলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল ।

রবিবার জেলার নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সদর ও সুবর্ণচর আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব একরামুল করিম চৌধুরীর সুন্দলপুরের বাড়িতে দুপুরের ভোজ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তিনি এ নির্দেশ দেন।

এ সময় এমপি একরামুল করিম চৌধুরী, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার, পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরীফ, বসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খায়রুল আনম সেলিম, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান শিহাব উদ্দিন শাহীন, জেলা আওয়ামী লীগের নেতা মাহমুদুর রহমান জাবেদ, নোয়াখালী শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিণ্টু, আওয়ামী লীগ নেতা শামছুদ্দিন সেলিম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। বেমাসরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী বলেন, আমার বাড়িও আপনাদের পাশে। নোয়াখালী বিমান বন্দরটি বাস্তবায়ন হলে তিনিও খুশি হবেন বলে জানান।

মন্ত্রী বলেন, আপনাদের উন্নয়ন প্রিয় সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দু’জনই আমাকে অনুরোধপত্র দিয়েছেন। এ নিয়ে সড়ক ও সেতুমন্ত্রীর সঙ্গে টেলিফোনে কথাও হয়েছে। আজ সদরের ধর্মপুর এলাকায় প্রস্তাবিত এ বিমান বন্দরের সম্ভব্যতা দেখার জন্য মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ তিনি এসেছেন।

মন্ত্রী বলেন, নোয়াখালী নদীবিধৌত এলাকা। এ এলাকায় পর্যটনেরও যথেষ্ঠ সম্ভবনা রয়েছে। এখানে অর্থনৈতিক জোনও হওয়ার কথা রয়েছে। সব মিলিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনা আবারো ক্ষমতায় এলে নোয়াখালীবাসীর দাবি পূরণ সম্ভব হবে বলে তিনি আশ্বাস দেন। মন্ত্রী পরে জেলার সদর উপজেলার ধর্মপুরের উত্তর ওয়াপদা এলাকায় বিমান বন্দরের জন্যে নির্ধারিত স্থান পরিদর্শনে যান।

অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী জেলা নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা গোলাম মহিউদ্দিন লাতু,নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগ নতা আব্দুল ওয়াদুদ পিন্টু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট ওমর ফারুক, সুবর্ণচর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক ও ৫নং চর জুবিলী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ হানিফ চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের আহব্বায়ক এডভোকেট আবুল বাসার, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ডাঃ আব্দুর রব, ২নং চরবাটা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রাজিব,২নং চরবাটা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন মোজাম, সুবর্ণচর উপজেলার আহব্বায়ক আমির খসরু মাহমুদ।

(আইইউএস/এসপি/জুলাই ২৩, ২০১৮)