১. প্রেমিক ছেলেটির সেই ক'দিন ধরেই কী সাংঘাতিক অসুখ! তাকে অসুখের কথা জিজ্ঞেস করতেই গোলাপ ফুলটাকে দুমড়ে-মুচড়ে চোখের সামনে ছুঁড়ে ফেললো সে, তখন তার হাতভরতি কাঁটার রক্তরঙিন দুঃসহ ব্যথাতুর অাঘাত! তারপর মৃত ছুঁড়ে ফেলা সেই গোলাপকে ছুঁয়ে সে তার বুকের বাঁ পাশটাতে ঝুলিয়ে রাখলো, হয়তো প্রত্যাখান পেলে মানুষের হৃদয়গুলোও এমন মৃত গোলাপ হয়ে যায়!

২. এই মন খারাপের দিনে
ভালোবাসা ছড়িয়ে পড়ুক বুকের জমাট ঋণে।
৩. প্রতিটা মানুষ তার বুকের ঘরে কী ভয়াবহ শূন্যতা নিয়ে বাস করে!
এতোটুকু বুকে এমন বিশাল শূন্যতা তারা কীভাবেই পুষে রাখে!
তবে অদ্ভুত ভালোবাসা জানে, মানুষ ভালোবাসলে এই বিশাল শূন্যতাকেও টপকিয়ে তার বুকের সবটা জুড়ে শুধু `তুমি' থাকে।

৪. অামরা ছিলাম দুই দূরবতী ফুল, প্রেম ছিলো ওই দৃষ্টিতে
অামরা ভিজিনি কামনায়, ক্লেদে, অবাক কোনো বৃষ্টিতে!
অামরা ভিজেছি বিরহে বিষাদে! বিখ্যাত করেছি প্রেম
অামরা কিনেছি দু’হাতে মৃত্যু, বেদনা চারুহেম…

৫. প্রেম যেন টবে সারিবদ্ধ কিছু ফুলের মতো
এতো কাছে থেকেও তারা কখনো কাছে অাসতে পারেনি, ছুঁতে পারেনি একে অপরকে, মিলিত হতে পারেনি পরস্পর!
যুগ যুগান্তর অাশ্চর্য দূরত্বে থেকে পুড়েছে তাদের মিলনের অঙ্গার।

৬. মারতে যদি হয় বিষ দিয়ে মারো, হৃদয় দিয়ে কেনো!
হৃদয় হত্যার থেকে বেশি পাপ অাত্নহত্যাতেও অাছে কি?

৭. তোমার মুখে ভালোবাসি শব্দটি শোনার জন্য তোমার উদ্দেশে অনায়াসে এ জন্ম কাটিয়ে দিলাম হেঁটে
অারও কতো জন্ম গেলো- শত সহস্র কোটি যৌবন গেলো কেটে

৮. যতদূরেই থাকি ভালোবেসেই ডাকি তবু `বিরহ’ নাম দিয়েছি এই যতো কাছেই থাকি মনে হয় হারাবারই বাকি কেনো জানি তোমাকেই!

৯. ছেলেটির গ্রীষ্মের চোখে এখন বরষার প্লাবন, হৃৎপিণ্ডখেকো মৎস্য সমুদ্রে ডুব
ছেলেটি অাজন্মই মেয়েটিকে পাঁজরের কাছে রেখে ভালোবেসে গেছে খুব…

১০. ভালোবাসা যদি চোখে নিয়ে নদী `ভালোবাসি’ পেয়ে যায় টের তোমার বুকের ভেতর খুব এক ভীষণ `অামি’ অাছি! ঠিক জেনে যাবে ফের।