কেন্দুয়া প্রতিনিধি: স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কণ্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনাকে লাখো লাখো অভিনন্দন জানিয়েছেন কেন্দুয়া উপজেলা ও পৌরবাসী। বহু প্রতিত যশা, কবি সাহিত্যিক, শিল্পি, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী ও বরেণ্য রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব সহ লোকজ সংস্কৃতির চারণ ভূমি কেন্দুয়া। এই কেন্দুয়া উপজেলার কেন্দুয়া পৌরসভাকে তৃতীয় শ্রেণী থেকে দ্বিতীয় শ্রেনীতে উন্নীত করার গ্যাজেট প্রকাশ করায় কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে এ অভিনন্দন জানানো হয়েছে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয় স্থানীয় সরকার বিভাগ পৌর-২ শাখার উপ-সচিব ফারজানা মান্নান রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে নেত্রকোনা জেলাধীন কেন্দুয়া পৌরসভাকে ‘গ’ শ্রেনী পৌরসভা হতে ‘খ’ শ্রেনীর পৌরসভায় উন্নীত করেন। গত ১৪ আগস্ট তাঁর সাক্ষরিত পত্রটি নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক, মেয়র কেন্দুয়া পৌরসভা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ বিভিন্ন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার নিকট প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রেরণ করেন। ‘গ’ শ্রেনী থেকে ‘খ’ শ্রেনীতে উন্নীত করার নির্দেশনা প্রদান করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান নেত্রকোনা-৩ আসনের এম.পি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, বাংলাদেশ যুব মহিলালীগের সাধারন সম্পাদক সংরক্ষিত আসনের সাবেক এম.পি অধ্যাপক অপু উকিল, কেন্দুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ নূরুল ইসলাম ও কেন্দুয়া পৌরসভার মেয়র নেত্রকোণা জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোঃ আসাদুল হক ভূঞা সহ কেন্দুয়া উপজেলা ও পৌরবাসীর বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিব্যর্গ। উল্লেখ্য ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা প্রথমবারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর ১৯৯৮ সালে কেন্দুয়া উপজেলা সদর সহ কান্দিউড়া ও মাসকা ইউনিয়নের কিছু অংশ নিয়ে কেন্দুয়া পৌরসভাটির ঘোষনা করেন তৎকালীন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী সাবেক রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান। কেন্দুয়া জয়হরিস্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় খেলার মাঠে হাজার হাজার জনতার উপস্থিতিতে এ ঘোষনা দিয়েছিলেন তিনি। এসময় মঞ্চে ওঠে কেন্দুয়াকে পৌরসভার দাবী তুলেছিলেন সাবেক এম.পি এম.জুবেদ আলী এডভোকেট ও আওয়ামীলীগ নেতা কান্দিউড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হক ভূঞা। পরে আব্দুল হক ভূঞাকে পৌরসভার প্রথম প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল। ২০ বছর পর নেত্রকোনা-৩ আসনের এম.পি অসীম কুমার উকিলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় পৌরসভাটি ‘গ’ শ্রেনী থেকে ‘খ’ শ্রেনীতে উন্নীত করার নির্দেশ দেয়া হয়।

(ওএস/পিএস/আগস্ট ২০, ২০১৯)