E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

কালিহাতীতে তুচ্ছ ঘটনায় একটি পরিবার অবরুদ্ধ!

২০২০ ডিসেম্বর ০৫ ১৪:২৮:২৩
কালিহাতীতে তুচ্ছ ঘটনায় একটি পরিবার অবরুদ্ধ!

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার নাগবাড়ি ইউনিয়নের আওলাতৈল গ্রামে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে একটি পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। থানায় অভিযোগ করার পরও ওই পরিবারের কাউকে পাশের আউলিয়াবাদ বাজারে যেতে দেওয়া হচ্ছেনা।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে, উপজেলার আউলিয়াবাদ এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের লাইন টানানোর কাজ চলছে। গত ২ ডিসেম্বর(বুধবার) বিকালে আউলিয়াবাদ-মরিচা সড়কের পাশে পল্লী বিদুতের লোকজন গাছের ডাল কাটছিল। এ সময় নাগবাড়ি ইউনিয়নের আওলাতৈল গ্রামের নওয়াব আলীদের একটি ট্রাক আউলিয়াবাদের দিকে যাচ্ছিল। গাছের ডাল কাটার কারণে ট্রাকটির আউলিয়াবাদ বাজারে যেতে বিলম্ব হচ্ছিল।

এ নিয়ে পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীদের সাথে ট্রাক চালকের বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় পারখী ইউনিয়নের গাংগাইতা গ্রামের মৃত হোসেন আলীর ছেলে আ. লতিফ পল্লী বিদ্যুতের কর্মচারীদের পক্ষাবলম্বন করেন। এর জের ধরে নওয়াব আলী ও আ. লতিফের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। এ সময় ট্রাকটি আউলিয়াবাদ বাজার বণিক সমিতির কাছে নিয়ে রাখা হয়।

এক পর্যায়ে আ. লতিফের নেতৃত্বে একই এলাকার সাবান আলী, আ. কাদের, আবু সাইদ, শরীফ, আলম, আসলাম, গফুর সহ ৫০-৫৫জন লোক দা-লাঠি নিয়ে আওলাতৈল গ্রামে গিয়ে নওয়াব আলীদের বাড়ি ঘেরাও করে হুমকি-ধমকি দেয় এবং বাড়ি থেকে বের হলে মেরে ফেলার ঘোষণা দেয়। পরে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে তারা ওই এলাকা ছেড়ে চলে যায়। এরই মধ্যে নওয়াব আলী ও তার ভাই জামাল আউলিয়াবাদ বাজারে গেলে আ. লতিফের আত্মীয় ও সমর্থকরা তাদেরকে মারপিট করে। এঘটনায় আওলাতৈল গ্রামের মৃত কাজল মিয়ার ছেলে নওয়াব আলী বাদি হয়ে কালিহাতী থানায় অভিযোগ দাখিল করেন।

এ বিষয়ে পারখী ইউপি চেয়ারম্যান মো. লিয়াকত আলী তালুকদার জানান, তুচ্ছ ঘটনাটিকে নওয়াব আলীরা বড় করে ফেলেছে। আগামিকাল রোববার(৬ ডিসেম্বর) গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি মিমাংসার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সালিশের আগ পর্যন্ত নওয়াব আলীদের নিরাপত্তার প্রয়োজনে বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। তাদেরকে কেউ অবরুদ্ধ করে রাখেনি।

কালিহাতী থানার এসআই মো. ফজলুল হক জানান, নওয়াব আলীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে সমাধান করার উদ্যোগ নিয়েছেন। সালিশে মিমাংসা না হলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

(আরকেপি/এসপি/ডিসেম্বর ০৫, ২০২০)

পাঠকের মতামত:

২২ জানুয়ারি ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test