E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

মহেশখালীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবক খুন

২০২১ জুলাই ০১ ২২:৩৭:২৭
মহেশখালীতে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবক খুন

জাহেদ সরওয়ার, কক্সবাজার : কক্সবাজারের মহেশখালীর কোহেলীয়া নদীর পাড়ে রাতে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়েছে সন্ত্রাসীরা । খুন হওয়া ব্যক্তি কালারমারছড়ার ইউনিয়নের উত্তর নলবিলার মৃত আব্দুস ছাত্তারের পুত্র মোঃ একরাম (৩০) বলে জানা গেছে । ৩০ জুন (বুধবার) রাত সাড়ে ১০টার সময়

মাতারবাড়ী উত্তর রাজঘাট ওয়াপদা পাড়া এলাকায় গেলে সন্ত্রাসীরা তাকে অতর্কিতে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ কোহেলিয়া নদীর পাড়ে ফেলে চলে যায় । পরে স্থানীয় এলাকাবাসীরা দেখতে পেলে মাতারবাড়ী পুলিশকে খবর দেয় । মাতারবাড়ী ক্যাম্প মহেশখালী থানায় খবর দিলে মহেশখালীর এএসপি সার্কেল এর নির্দেশে ঘটনাস্থলে একটি পুলিশ টিম এসে লাশ উদ্ধার করে । এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত লোকজন লাশ দেখে সনাক্ত করেন মৃত ব্যক্তি কালারমারছড়া ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা এলাকার মৃত আব্দুস ছাত্তারের পুত্র একরাম প্রকাশ একরাম ডাকাত ।

নিহত একরাম গত বছর কালারমারছড়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে র‍্যাবের একটি আত্বসমর্পণ অনুষ্ঠানে আত্বসমর্পণ করে জেলে গিয়েছিল । তিনি মাত্র কয়েক মাস আগেই জেল থেকে জামিনে বের হয় । এদিকে নিহত একরামের স্বজনদের দাবী তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে লাশ নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে । একরামের স্বজনদের দাবী তাকে উত্তর নলবিলার নুরল কবির ডাকাতই হত্যা করেছে ।

এর আগে তারা বিভিন্ন সময় নিহত একরাম এবং একই এলাকার ডাকাত নুরল কবিরের সাথে অনেকবার মারামারির ঘটনা ঘটেছে । তারা উভয়ে মারামারির ঘটনায় দু'জনই জেল কেটেছে । একরাম হত্যার ঘটনার রেশ ধরে নুরল কবির কে সন্দেহমুলক হওয়ায় ১ জুলাই সকাল ৮ টার সময় উত্তর নলবিলার একটি বাড়ী থেকে ধরে এনে গণধোলাই দেয়, খবর পেয়ে মহেশখালী থানা পুলিশ উত্তর নলবিলা বড়ুয়া বাজার থেকে কবির কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে মহেশখালী থানায় নিয়ে যাওয়া হয় । আহত নুরল কবিরের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয় ।

নিহত একরামের মামা কালারমারছড়ার ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার লিয়াকত আলী খাঁন বলেন, আমার ভাগিনা একরাম মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে আত্মসমর্পণ করে আলোর পথে এসেছিল । কিন্তু স্থানীয় কিছু মানুষের ইন্ধনে চিহ্নিত সন্ত্রাসী কবিরের নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসী হত্যা করে । আমি খুনিদের দ্রুত সময়ে গ্রেফতারের দাবী জানাচ্ছি ।

মাতারবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, ঘটনাটি শুনার পর আমি সহ আমার ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার নিয়ে উত্তর রাজঘাট ওয়াপদা ঘটনাস্থলে আসি । উপস্থিত এলাকাবাসীর কাছ থেকে পুরো ঘটনা শুনে আমার বোধগম্য হয় । এটা পুরোপুরি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড । এ ধরনের ঘটনা সত্যিই নিন্দাজনক । এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের শাস্তি দাবি জানাচ্ছি ।

মহেশখালী থানার ওসি মোঃ আব্দুল হাই ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মহেশখালী-কুুতুবদিয়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) সহ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে । এছাড়াও হত্যা কান্ডের সাথে কে বা কারা জড়িত তাদের বিরদ্ধে তদন্ত করে আইনের আওয়াতায় আনা হবে বলে জানান তিনি ।

(জেএস/এসপি/জুলাই ০১, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

১৫ জুন ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test