E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

জেলার প্রথম শিশুপার্ক মহেশখালীতে

২০২১ আগস্ট ০১ ১৩:৪৩:১৭
জেলার প্রথম শিশুপার্ক মহেশখালীতে

জাহেদ সরওয়ার, কক্সবাজার : কক্সবাজার জেলায় কোন শিশুপার্ক না থাকলেও এবার বাংলাদেশের একমাত্র পাহাড়ি দ্বীপ মহেশখালী উপজেলার ছোট মহেশখালী ইউনিয়নে শেখ রাসেল শিশুপার্ক উদ্বোধন হয়ে গেল। বাংলাদেশ সরকারের স্হানীয় প্রকল্পের আওতাধীন এলজিএসপি প্রকল্পের ১০ লাখ টাকা বাজেটে, ৪০ শতক জায়গার উপর নির্মিত শিশুপার্কের উদ্বোধনী মোড়ক উন্মোচন করেন মহেশখালী- কুতুবদিয়ার সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক।

মোড়ক উন্মোচনের মধ্যে দিয়ে সূচিত হলো মহেশখালীর বিনোদন পার্ক। নান্দনিক এই পার্কে শিশুদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো।

স্থানীয় এক দর্শনার্থীকে শিশুপার্ক স্হাপন বিষয়ে জানতে চাইলে জানান, শিশুরা অত্যন্ত আনন্দিত, সঠিক পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণ না হলে শিশুপার্কটি কোমলমতি শিশুদের মনে বিরহের দাগ কাটবে। সচেতন অভিভাবকদের কচিকাঁচা শিশুদের নিয়ে আসতে দেখা যায় এই পার্কে। এক অভিভাবক জানান, অনেক সময় বাচ্চারা কোথাও ঘুরতে যাওয়ার বায়না ধরে। এখানে শিশুপার্ক হওয়ায় আমরা সহজেই বাচ্চাদের ঘুরিয়ে নিয়ে আসতে পারবো। এটা আমাদের শিশুদের বেড়ে উঠার জন্য অনেকটা সহায়ক হবে।

উল্লেখ্য, এই শিশুপার্কটির পরিকল্পনাকারী উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মো: মাহফুজুর রহমান। তিনি এই সরকারি জমিটুকু উদ্ধার করেন ভুমি দস্যুদের কাছ থেকে। তারপর সেখানে পার্ক নির্মাণ করেন। এটি ছাড়াও তিনি মহেশখালীর অন্যসব ইউনিয়ন পরিষদেও অনুরুপ শিশুপার্ক নির্মাণ করার উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি বলেন, এতবড় মহেশখালীতে একটাও পার্ক নেই ব্যাপারটা আমাকে ভাবিয়েছে। শিশুদের কোন বিনোদনের জায়গা না থাকলে তাদের মানসিকতার পরিপূর্ণ বিকাশ অসম্ভব। তাই এই উদ্যোগ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ আশেক উল্লাহ রফিক বলেন, শেখ রাসেলের নামে এই পার্ক এই জন্য উদ্যোক্তাদের ধন্যবাদ। শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে এদেশের শিশুদের প্রতিনিধি হতেন। এই পার্কটিও শিশুদের জন্যই নির্মিত। যদিও এখনো কাজ সম্পুর্ণ হয়নি। সম্পুর্ণ হলে এটা একটা পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হবে।

(জেএস/এসপি/আগস্ট ০১, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

২৫ জুন ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test