E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

রংপুরে এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার উদ্দেশ্যে পা বিচ্ছিন্ন, মামলা নেয়নি পুলিশ

২০২১ ডিসেম্বর ২২ ১৭:৩২:১৯
রংপুরে এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার উদ্দেশ্যে পা বিচ্ছিন্ন, মামলা নেয়নি পুলিশ

মানিক সরকার মানিক, রংপুর : পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রংপুরে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার উদ্দেশ্যে ট্রাক্টরের চাপা দিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায় প্রতিপক্ষের লোকজন। ওই পরীক্ষার্থীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকরা তার বা-পাটি কেটে ফেলেন। বর্তমানে তার ডান পা-টিও কেটে ফেলার উপক্রম হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানান। 

এ অবস্থায় ওই পরীক্ষার্থী পরীক্ষা না দিতে পেরে এবং চিরদিনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ করে অসহায়ত্ব মেনে নিলেও পুলিশ মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ করেছে পরীক্ষার্থীর মা মানিকা বেগম, বাবা আনোয়ার হোসেনসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা। বুধবার দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিবারের সদস্যরা এই অভিযোগ আনেন। তবে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলছেন, তার কাছে কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আসলেই তিনি মামলা নিতেন।

সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মা মানিকা বেগম জানান, রংপুর মহানগরীর আনন্দালোক ডিগ্রী কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মিল্লাত মিয়া গত ২৯ নভেম্বর বিকেলে গংগাচড়া উপজেলার কোলকোন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ কোলকোন্দ এলাকার চেংডোবা গ্রামে জমিতে কাজ করার সময় প্রতিপক্ষ সাহেব আলী, লাভলু মিয়া কৌশলে মিল্লাতকে ডেকে নিয়ে ট্রাক্টরে উঠতে বলে। এসময় মিল্লাত ট্রাক্টরে ওঠার আগেই চালক পরিকল্পিতভাবে তাকে চাপা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এতে মিল্লাতের দুই পায়ের উপর দিয়ে ট্রাক্টরটি চলে গেলে সে গুরুতর জখম হয়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

হাসপাতালে ভর্তির পর চিকিৎসকেরা মিল্লাতের জীবন রক্ষার্থে তার বাম পা-টি হাটুর নীচ থেকে কেটে ফেলেন। তার ডান পা-টিও কেটে ফেলতে হবে বলে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন বলে জানান মিল্লাতের মা মানিকা বেগম। সংবাদ সন্মেলনে উপস্থিত মিল্লাতের চাচা ইব্রাহীম মিয়া জানান, ঘটনার পর এ বিষয়ে গংগাচড়া মডেল থানায় মামলা করার জন্য গেলে পুলিশ তার এজাহার নিলেও মামলা রেকর্ড করেননি।

এদিকে দুই পা হারিয়ে পঙ্গুত্ব মেনে নেয়া আর পরীক্ষা দিতে না পারার বেদনায় মিল্লাত মিয়া হাসপাতালের বিছানায় ছটফট করছে। বর্তমানে প্রতিপক্ষ মিল্লাতের পরিবারে সদস্যদের বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য হুমকি দিচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। এ ব্যাপারে গংগাচড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার সরকার জানান, আমার কাছে কেউ মামলা করতে আসেননি। আসলে মামলা নিবো বলে জানান তিনি।

(এমএস/এসপি/ডিসেম্বর ২২, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

১৪ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test