E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

১০০ বছরের খেলার মাঠে আশ্রয়ন প্রকল্প না করার দাবিতে এলাকাবাসির বিক্ষোভ সমাবেশ 

২০২২ মে ২৮ ১৮:৩১:৪৭
১০০ বছরের খেলার মাঠে আশ্রয়ন প্রকল্প না করার দাবিতে এলাকাবাসির বিক্ষোভ সমাবেশ 

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া : নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের বলাইশিমুল গ্রামে একশ বছরের একটি খেলার মাঠ রয়েছে। ওই মাঠে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। প্রশাসনের এ সিদ্ধান্ত বাতিল করে ওই খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে শনিবার দুপুরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন এলাকার শত শত লোকজন।

শনিবার (২৮ মে) দুপুরে কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের বলাইশিমুল গ্রামের ঐতিহ্যবাহী ওই খেলার মাঠে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, এডভোকেট মিজানুর রহমান বিএসসি, শিক্ষক নুরুল আমিন সবুজ, আতিকুর রহমান চুন্নু, হাবিবুর রহমান মন্ডল ও সাবেক ইউপি সদস্য হায়দার আলী তালুকদার প্রমুখ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বলাইশিমুল গ্রামে অবস্থিত সরকারি শতবর্ষী খেলার মাঠের ভূমির পরিমান ১ একর ৮০ শতাংশ। বলাইশিমুল ইউনিয়নের একমাত্র খেলার মাঠ এটি। এ মাঠে সুদীর্ঘকাল ধরে খেলাধুলা করে আসছে ইউনিয়নটির বিভিন্ন গ্রামসহ আশপাশের ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও স্থানীয় লোকজন। কিন্তু সম্প্রতি মাঠের একাংশে আশ্রয়ণ প্রকল্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে উপজেলা প্রশাসন। এ অবস্থায় মাঠ রক্ষার দাবিতে সোচ্চার হয়ে ওঠে এলাকার জনসাধারণ।

বলাইশিমুল গ্রামের স্কুলছাত্র মুজাহিদুল ইসলাম জানায়, লেখাপড়ার পাশাপাশি আমরা এ মাঠে খেলাধুলা করি। এই মাঠের এক অংশে গুচ্ছ গ্রাম বা আশ্রয়ন প্রকল্প হলে মাঠটি নষ্ঠ হয়ে যাবে। আমরা আশ্রয়ন প্রকল্প অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার দাবী জান্নাচ্ছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য হুমায়ূন কবীর বলেন, আমাদের বলাইশিমুল গ্রামের খেলার মাঠটি বহু পুরনো। এখানে আমাদের বাপ-দাদারা খেলাধুলা করেছেন আমরাও করেছি। বর্তমান সময়ের শিক্ষার্থী এখানে প্রতিনিয়ত খেলাধুলা করে আসছে। এখানে আশ্রয়ণ প্রকল্প হলে এলাকার শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা করার মতো আর কোনো জায়গা থাকবে না। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহমুদা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি এখানে যোগদানের আগেই ওই মাঠের একাংশের ৫০ শতক জমিতে আশ্রয়ণ প্রকল্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। বিষয়টি নিয়ে গত সমন্বয় সভায়ও আলোচনা হয়েছে। আশেপাশে আশ্রয়ণ প্রকল্প নির্মাণের উপযোগী খাস জমি না থাকায় আমরা খেলার মাঠের একপাশেই আবাসন করতে চাচ্ছি সেই সঙ্গে খেলার মাঠটিরও উন্নয়ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আগামীকাল রোববার এলাকাবাসিকে নিয়ে সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে আবার বসব।

(এসবি/এসপি/মে ২৮, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৬ জুন ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test