E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক নেতা আব্দুর রহিমের মাগফিরাত কামনায় সাতক্ষীরায় দোয়া

২০২২ আগস্ট ০৭ ২০:৩৯:১৩
ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক নেতা আব্দুর রহিমের মাগফিরাত কামনায় সাতক্ষীরায় দোয়া

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : ভোলায় পুলিশের গুলিতে নিহত জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নূরে  আলম ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আব্দুর রহিমের মাগফিরাত কামনায় সাতক্ষীরায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আয়োজনে রোববার বিকাল ৫ টায় শহরের ইটাগাছা একটি কমিউনিটি সেন্টারে এই দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

দোয় মাহফিলে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহবায়ক অ্যাড. সৈয়দ ইফতেখার আলীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক হাবিবুর রহমান হবি, জেলা শ্রমিকদল সভাপতি আব্দুস সামাদ, জেলা যুবদল সভাপতি আবু জাহিদ ডাবলু, জেলা কৃষকদল আহবায়ক আহসানুল কাদির স্বপন, পৌর বিএনপির আহবায়ক শের আলী, সদর থানা বিএনপির আহবায়ক অ্যাড. নুরুল ইসলাম, সদর থানা বিএনপির সদস্য সচিব নুরে আলম সিদ্দিকী, দেবহাটা বিএনপির আহবায়ক মহিউদ্দীন সিদ্দিকী, আশাশুনি উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব মশিউল হুদা তুহিন, প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সৈয়দ ইফতেখার আলী বলেন, ১৯৯০ সালে স্বৈরাচারী সরকার পতনের আন্দলনের সময় পুলিশের গুলিতে ছাত্রনেতা নুর হোসেন মারা যাওয়া কারনে সরকারের পতন ঘঠে। একই ভাবে ২০২২ সালে এসে এই অবৈধ ও স্বৈরাচারী সরকার একই ভাবে বিএনপির দুই নেতাকে গুলি করে হত্য করলো যার কারনে তাদের ও পতন অনিবার্য়।

বর্তমান সরকার বিএনপির আন্দোলনকে ভয় পায়। আর তাই বিএনপিকে মাঠে দেখলেই তারা হামলা করে। রাজপথে বিএনপির গণতান্ত্রিক দাবির মিছিলে গুলি করে হত্যা করা শুরু করেছে। যা খুবই লজ্জাজনক। ইতিহাস সাক্ষী রাজপথে মিছিলে গুলিতে হত্যা করে কোনো সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেনি।

(আরকে/এএস/আগস্ট ০৭, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

০৭ অক্টোবর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test