E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

নারী এনজিও কর্মী হত্যাচেষ্টা মামলার আসামিদের শাস্তি দাবি

২০২২ আগস্ট ১২ ১৮:২৬:৩৮
নারী এনজিও কর্মী হত্যাচেষ্টা মামলার আসামিদের শাস্তি দাবি

রাজন্য রুহানি, জামালপুর : জামালপুরে এনজিও উন্নয়ন সংঘের এরিয়া প্রোগ্রামের সিএফ জুয়াইরিয়া নিপাকে অপহরণের পর হত্যার চেষ্টা মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। সেই সঙ্গে আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) বাদ জুমআ জামালপুর-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক মহাসড়কের শরিফপুর বাজার এলাকায় ঘন্টাব্যাপী অবরোধ করে এ কর্মসূচি পালন করে স্থানীয়রা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জামালপুর উন্নয়ন সংঘের পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিম, স্থানীয় আনিস মেলেটারি, মিল্টন আকন্দ, সোহেল রানা প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা নিপাকে অপহরণ এবং হত্যা চেষ্টাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন। পরে বিক্ষোভ মিছিল করে মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারী বিক্ষুব্ধ জনতা।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, চাঞ্চল্যকর এই মামলার আসামি শরিফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলম আলী প্রকাশ্য ঘুরলেও রহস্যজনক কারণে এখনো গ্রেপ্তার হয়নি।

মামলার বিবরণ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ৫ আগস্ট শুক্রবার সকালে উন্নয়নে সংঘের এক মাঠ কর্মীর সাথে দেখা করার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় জুয়াইরিয়া নিপা। তারপর আর বাড়ি ফিরেনি। রাস্তা থেকে তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় অপহরণকারীরা। ঘটনার ৬দিন গত বুধবার রাতে নেত্রকোনার পূর্বধলার নির্জনস্থান থেকে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিপা জামালপুর সদরের শরিফপুর গ্রামের নুরুল আমীনের মেয়ে।

নিপার মা মোছাঃ নুরুন্নাহারের অভিযোগ, শরিফপুর ইউনিয়নের জয়রামপুর গ্রামের চান মিয়ার পুত্র মামুন মিয়া বিয়ের প্রলোভনে নিপার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। পরে নিপাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। গত ৩ মাস আগে সালিশ বৈঠকে আপস মীমাসার মাধ্যমে নিপার সাথে মামুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর শুরু হয় নিপার উপর মামুনের শারীরিক ও অমানুষিক নির্যাতন। এ ঘটনায় নিপা গত ২১ জুন সদর থানায় মামুন মিয়ার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ১১(গ) ধারায় মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর মামুন, তার পরিবার ও তার চাচাতো ভাই শরিফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলম চরম ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে নিপাকে হুমকি দিয়ে আসছিলো মামুন।

মামুন মিয়া ও তার চাচাতো ভাই ইউপি চেয়ারম্যান আলম আলীসহ আসামিরা নিপাকে অপহরণ করে হত্যার উদ্দেশ্যে অমানুষিক নির্যাতনের পর মৃত ভেবে নেত্রকোনার পূর্বধলার নির্জনস্থানে ফেলে রাখে। নিপার মা জানায়, তার মেয়ে বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। অপহরণ ও নির্যাতনের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান নিপার পরিবারের সদস্যরা।

মামলার অন্য আসামিরা হচ্ছে- মামুন মিয়ার বাবা চান মিয়া, শরিফপুর গ্রামের আব্দুল করিমের স্ত্রী দিপা বেগম ও হামিদপুর গ্রামের দানেছ উদ্দিনের পুত্র মমিন।

এ ব্যাপারে উন্নয়ন সংঘের পরিচালক (মানবসম্পদ বিভাগ) জাহাঙ্গীর সেলিম জানান, গত ৪ আগস্ট বিশ্ব মাতৃদগ্ধ দিবসের প্রোগ্রামেও নিপা উপস্থিত ছিল। ৫ আগস্ট সকালে বাড়ি থেকে বের হবার পর তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। মধ্যযুগীয় কায়দায় নিপাকে অপহরণ এবং হত্যা চেষ্টাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি। সুষ্ঠু ও ন্যায়বিচার না হলে কঠোর সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন জাহাঙ্গীর সেলিম।

জামালপুর সদর থানার ওসি কাজী শাহনেওয়াজ জানান, এ ঘটনায় শরিফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলম আলীসহ ৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

(আরআর/এসপি/আগস্ট ১২, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test