E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

‘বঙ্গবন্ধু শহীদ হওয়ার পর ঢাকা শহরের কোথাও প্রতিবাদ হয়নি’

২০২২ আগস্ট ১৮ ২৩:২৬:৩৮
‘বঙ্গবন্ধু শহীদ হওয়ার পর ঢাকা শহরের কোথাও প্রতিবাদ হয়নি’

ওয়াজেদুর রহমান কনক, নীলফামারী : ২১ আগষ্ট এখন শোক দিবস হিসেবেও পালিত হতে পারে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর পরেই আমরা দেখলাম, তাঁর ঘনিষ্ঠজন যারা, তারাই আবার ক্ষমতায় গেছে। তারাই আবার আরেক আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় এনেছে। এতোদিন পর সেদিন প্রধানমন্ত্রী কান্নাভেজা কন্ঠে বললেন, জাতির পিতার সঙ্গে সারা জীবন এতো মানুষজন ছিল, তাঁর লাশ যখন পড়ে রইল, আওয়ামী লীগ এতো বড় একটি সংগঠন তখন কেউ নামেনি! 

এটা সত্য কাদের তিনি নেতা ছিলেন। এই সত্য গুলোর মুখোমুখি না হলে 'জয় বঙ্গবন্ধু বলতে পারেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে মাতোয়ারা হতে পারেন, কিন্তু তাঁকে ধারণ করা হলো না। বঙ্গবন্ধু শহীদ হওয়ার পর, অনেকেই প্রতিবাদ করেছিলেন, বিভিন্ন জায়গায় প্রতিবাদ হয়েছে। ঢাকা শহরে কোথাও প্রতিবাদ হয়নি। এটা সত্য।

২১ আগষ্ট সেদিন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ শেখ হাসিনাকে ঘিরে ধরে রেখেছিল। দু'শ মানুষের মতো সেদিন আহত হয়েছিল, এই ঘটনায় আইভি রহমান চলে গেলেন। ২১ আগষ্ট ঘটনার পর বিএনপির অনেক নেতা পালিয়ে গিয়েছিল, তারা ভেবেছিল, আওয়ামী লীগ রাজপথে নেমে সব কিছু ভাসিয়ে নিয়ে যাবে। বিএনপির শাসন থাকবে না।
আজকে সবাই আওয়ামী লীগ করেন, নেতা যখন চলে যায়, তখন আপনারা থাকেন না কেন?

আবার গ্রামাঞ্চলের মানুষ দেখেন, এই সব দরিদ্র মানুষ কিন্তু হাসপাতালে কাতরাচ্ছে, যাদের সহায়তা করার কেউ নেই নেত্রী ছাড়া। তারা কিন্তু নেতাকে ঠিকই ধারণ করে আছে। এই পার্থক্যটা কেন হচ্ছে? আওয়ামী লীগের জন্য যারা জীবন ত্যাগ করে দেয়, ক্ষমতায় যাওয়ার পর হঠাৎ করে আওয়ামী লীগ তাদের জন্য অচেনা হয়ে যায়। যাদের আমরা কোথাও দেখি না, তারা সবাই নেতা হয়ে যায়। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এই প্রথা সব সময় মেনে এসেছে বলেই, তারা যখন চলে যান, তখন রাস্তায় কেউ থাকে না। এসব কিছু থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে।

১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন আজ বুধবার সন্ধ্যায় নীলফামারীতে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন।

জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুজার রহমানের সভাপতিত্ব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কৃষিবিদ দেওয়ান কামাল আহমেদ এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মমতাজুল হক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মশফিকুল ইসলাম রিন্টু, সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন মুন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত সাঁতার প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরন করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।

(ওকে/এসপি/আগস্ট ১৮, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test