E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

নবীনগরে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

২০২২ সেপ্টেম্বর ২২ ১৭:৫০:৩২
নবীনগরে সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত

গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া : আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসবকে সামনে রেখে ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সামাজিক বন্ধনকে সুসংহত করার লক্ষ্যে আজ বৃহস্পতিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা সদরে বিশাল আয়োজনে এক 'সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশ' অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ওই সম্প্রীতির সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটির সদস্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ এবাদুল করিম বুলবুল।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক শাহগীর আলম, পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান মনির, মেয়র এডভোকেট শিব শংকর দাস, ওসি সাইফুদ্দিন আনোয়ার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিউলী রহমান প্রমুখ। সমাবেশে বিভিন্ন পেশার একাধিক প্রতিনিধি বক্তব্য রাখেন।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত আড়াই ঘন্টারও বেশী সময় ধরে চলা ওই দীর্ঘ সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশে সভাপতিত্ব ও পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) একরামুল ছিদ্দিক।

বক্তারা আসন্ন শারদীয় দূর্গোৎসবে প্রতিটি পূজা মন্ডবে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে সরকারের নেয়া বিভিন্ন দিক নির্দেশনা উপস্থিত জনতার উদ্দ্যেশ্যে প্রদান করেন।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশ একটি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। কিন্তু কোন কোন মহল দেশের ভাবমূতি নষ্ট করতে মাঝে মাঝে বাংলাদেশের সম্প্রীতি নষ্টের পাঁয়তারা চালায়। কিন্তু বঙ্গবন্ধুর এই অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে কোনভাবেই সাস্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট হতে দেয়া যাবেনা।

বক্তারা বলেন, সারাদেশের মধ্যে নবীনগর উপজেলাকে বলা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অন্যতম একটি মডেল উপজেলা। আমরা চাই, এখানকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সারাদেশের জন্য অনুকরণীয় হোক।

বক্তারা আরও বলেন, গত বছর দূর্গোৎসব চলাকালে কুমিল্লায় ধর্ম অবমাননার অভিযোগে সারাদেশে যে সাম্প্রদায়িক তান্ডব চালিয়েছিল একদল দুস্কৃতিকারী, সেসময়ও নবীনগরের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট হয়নি। তখন সম্প্রীতি রক্ষায় স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিমের নেতৃত্বে এখানকার শতশত হিন্দু মুসলমানেরা রাস্তায় নেমে একে অপরের কাঁধে হাত রেখে নবীনগরে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে বিশাল মানববন্ধন করে সারাদেশে এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

বক্তারা আলেম সমাজের প্রশংসা করে বলেন, শুধু তাই নয়। গত বছর কারও কারও তীর্যক সমালোচনাকে উপেক্ষা করে স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে এখানকার আলেম সমাজ নিজেরা দল বেঁধে বিভিন্ন পূজা মন্ডব পরিদর্শন করে মন্দির ও মূর্তি রক্ষায় সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেছেন, যা সারাদেশে পরবর্তীতে প্রশংসিত হয়েছে।

সুতরাং এবারও অতীতের মতো নবীনগরে দূর্গোৎসব চলাকালে স্থানীয় হিন্দু মুসলমানের সমন্বয়ে প্রতিটি ইউনিয়নে ইউনিয়নে সম্প্রীতি রক্ষায় যেসব কমিটি গঠিত হয়েছে, সেসব কমিটি তাদের সর্বোচ্চ শক্তি নিয়ে যথাযথ ভূমিকা রাখবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।

পাশাপাশি নবীনগরে এবছর ১৩৩টি পূজা মন্ডবে অনুষ্ঠেয় দূর্গোৎসব চলাকালে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্ট করতে কেউ যদি ফেসবুকে গুজব ছড়িয়ে কিংবা কোন পূজা মন্ডবের ক্ষতি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে ন্যুনতম চেষ্টা করে, তাহলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেইসব দুস্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর দৃষ্টান্তমূলক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও অনুষ্ঠানে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন জেলা প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা।

বিশাল আয়োজনে বিভিন্ন পেশার অগণিত মানুষের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এই সামাজিক সম্প্রীতি সমাবেশে উপজেলার বিভিন্ন দফতরের সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, আলেম সমাজ, মসজিদের ইমাম, মন্দিরের পুরোহিত, পূজা উদযাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকসহ সর্বস্তরের অসংখ্য মানুষকে অংশ নিতে দেখা যায়।

(জিডি/এসপি/সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test