E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

ঝিনাইদহে দুর্গাপূজার উৎসবমুখর পরিবেশ নিশ্চিত করতে পুলিশ বদ্ধপরিকর

২০২২ সেপ্টেম্বর ২৭ ১৯:৫৯:১৭
ঝিনাইদহে দুর্গাপূজার উৎসবমুখর পরিবেশ নিশ্চিত করতে পুলিশ বদ্ধপরিকর

অরিত্র কুণ্ডু, ঝিনাইদহ : হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দূর্গাপুজার প্রস্তুতি এখন শেষের দিকে। তুলির আঁচড়ে প্রস্তত হচ্ছে প্রতিমা। মন্দিরে মন্দিরে চলছে উৎসবের আমেজ। ঝিনাইদহ জেলায় এবছর ৪৪৫টি পূজা মণ্ডপে শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, মণ্ডপে মণ্ডপে দুর্গাপ্রতিমা প্রস্তুত করায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা। তারা নিজেদের সাধ্যের সবটুকু উজাড় করে রং-তুলির আঁচড়ে তাদের পরম আরাধ্য দেবীকে দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে কাজ করছেন।

কয়েকজন প্রতিমাশিল্পীর সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, বেশ আগেই প্রতিমা গড়া শেষ হয়েছে। এখন রঙের কাজ চলছে। পূজা শুরুর শুভক্ষণ যত ঘনিয়ে আসছে, তাদের ব্যস্ততা ততই বাড়ছে। যথাসময়ে প্রতিমাকে বর্ণিল সাজে সাজিয়ে তুলতে নাওয়া-খাওয়া ভুলে তারা দিনরাত খেটে চলেছেন। জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, আগামি ১ অক্টোম্বর মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে ৫ দিনব্যাপী দুর্গোৎসব।৫ অক্টোবর দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসবের সমাপ্তি ঘটবে। সুষ্ঠুভাবে দুর্গাপূজা উদযাপনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের পাশাপাশি জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

ঝিনাইদহ জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি কনক কান্তি দাস জানান,এ বছর জেলা শহরসহ ৬টি উপজেলায় মোট ৪৪৫টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।ইতোমধ্যে শিল্পীরা মণ্ডপগুলোতে প্রতিমা তৈরির কাজ অনেকখানি এগিয়ে নিয়েছেন।শেষ সময়ে অনেক মণ্ডপে প্রতিমায় রংতুলির আঁচড় দিচ্ছেন শিল্পীরা।

এ বছর ঝিনাইদহ পৌরসভা এলাকায় ২০টি মণ্ডপসহ সদর উপজেলায় মোট ১০৫টি, শৈলকূপায় ১২৭টি, কালীগঞ্জ ৮৭টি, কোটচাঁদপুরে ৪৬টি, মহেশপুরে ৪৭টি মণ্ডপে ও হরিণাকুণ্ডু উপজেলায় ৩৩টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

ঝিনাইদহ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশিকুর রহমান বিপিএম পিপিএম (বার) জানান, দুর্গাপূজার উৎসবমুখর পরিবেশ নিশ্চিতে ঝিনাইদহ জেলা পুলিশ বদ্ধপরিকর।এ লক্ষ্যে প্রতিমা তৈরি থেকে শুরু করে বিসর্জন পর্যন্ত পূজার সকল আয়োজনের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।হিন্দু নেতারা ছাড়াও ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সুধীজনের পরামর্শ ও মতামতের আলোকে পরিকল্পনা সাজাতে এরই মধ্যে জেলা সদরসহ প্রত্যন্ত এলাকায় মতবিনিময় ও সভা-সমাবেশ চলমান রয়েছে।

জেলা পুলিশসহ সবার আন্তরিক প্রচেষ্টা ও সহযোগিতায় উৎসবমুখর পরিবেশে পূজা উদযাপনের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন জেলা পুলিশের শীর্ষ এই কর্মকর্তা।

(একে/এএস/সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৮ নভেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test