E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

ডিফেন্ডার মাছুরা পারভীনকে কলারোয়ায় সংবর্ধনা 

২০২২ অক্টোবর ০৬ ১৮:৫৭:১৫
ডিফেন্ডার মাছুরা পারভীনকে কলারোয়ায় সংবর্ধনা 

রঘুনাথ খাঁ, সাতক্ষীরা : সাফ মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২২-এ বাংলাদেশ মহিলা ফুটবল দলের ডিফেন্ডার মাছুরা পারভীন ও তার পরিবারকে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।  

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয় সংবর্ধনা সভায় তাকে ৫০ হাজার টাকার প্রাইজবণ্ড ও নগদ ১০ হাজার টাকা উপহার হিসেবে দেওয়া হয়। এ ছাড়া সরকারি জমিতে মাসুরার পরিবারকে বাড়ি তৈরি করে দেওয়ার ঘোষণা দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলি বিশ্বাস।

কলারোয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তালা-কলারোয়া সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাসুরার বাবা রজব আলী, মা ফাতেমা খাতুন, উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, পৌর মেয়র মনিরুজ্জামান, থানা ভারপ্রাপ্ক কর্মকর্তা নাসিরউদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, সাধারণ সম্পাদক আলিমুর রহমান, হেলাতলা ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান বিশাখা তপন সাহা প্রমুখ।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মাসুরার বাবা রজব আলী ও তার মা ফতেমাকে ফুল ও ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাসুরার বোন সুমাইয়া পারভিন।

প্রধান অতিথি অ্যাড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ বলেন, মাসুরার জন্য সাতক্ষীরা তথা কলারোয়াবাসির আলাদা ভালবাসা ও দোয়া রয়েছে। মাসুরার গ্রামের বাড়ি কলারোয়া উপজেলা কয়লা ইউনিয়নের আলাইপুর গ্রামে। মাসুরা এখন শুধু সাতক্ষীরার নয়, সারা দেশের গর্ব। তাকে দেখে অভিভাবক ও মেয়েরা অনুপ্রেরণা পাবে। অভিবাবকরা তাদের মেয়েদের মাঠে পাঠাতে উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা পাবেন। এক সময় মেয়েদের খেলাধুলা নিয়ে নানা ধরণের কথা হতো। এখন থেকে সেটা আর তাকবে না। মাদকমুক্ত সমাজ গঠন করতে নিজের সন্তানকে লেখাপড়ার সাথে ক্রীড়া অঙ্গনে বা খেলার মাঠে আনতে হবে প্রতিটি অভিভাবকদের। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া উচিত বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন।

স্মৃতিচারণ করতে যেয়ে মাসুরার বাবা রজব আলী বলেন, প্রথম জীবনে তিনি হোটেলে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেছেন। পরে শহরের বিভিন্ন স্থানে চায়ের দোকান দিয়েছেন। কয়েক দিন আগেও ভ্যানে করে সবজি ও ফল বিক্রি করেছেন। তবে শ্বাসকষ্ট ও হার্টের সমস্যার কারণে তিনি আর সেভাবে কাজ করতে পারেন না।

এমন অভাবের সংসারে মেয়ে ফুটবল খেলুক তা চাননি রজব আলী। তিনি বলেন, মেয়ের জেদের কারণে নতি স্বীকার করতে হয়েছে তাকে। অবশ্য মেয়ের জেদের চেয়ে মাসুরার কোচ আকবর আলীর চেষ্টা ও স্ত্রী ফাতেমা বেগমের ইচ্ছাকে গুরুত্ব দিয়েছেন তিনি। এখন তিনি মেয়েকে নিয়ে গর্ব বোধ করেন। সাতক্ষীরা ও দেশের মানুষের ভালবাসা পেয়ে তিনি অনেক খুশী।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুলি বিশ্বাস বলেন, মাসুরা একজন প্রকৃত হীরো। তিনি সাতক্ষীরা তথা দেশের জন্য অনন্য সম্মান বয়ে এনেছেন। সবাইকে মাসুরার পা্েযশ থাকতে হবে উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন কলারোয়ার আলাইপুর গ্রামে যদি সরকারি খাস জমি থাকে তাহলে মাসুরার পরিবারকে সেখানে বাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে। তা না পেলে সকলের সহযোগতিায় জমি কিনে বাড়ি তৈরি করে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মাসুরা পারভিন বলেন, কলাররোয়া তথা সাতক্ষীরাবাসির কাছে তিনি কৃতজ্ঞ। দেশের মানুষ নারী ফুটবলারদের ভালবাসায় ভরিয়ে দিয়েছে। সবাই তাদের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা দিচ্ছে। দেশের মানুষ এভাবে পাশে থাকলে নারী ফুটবলাররা দেশের জন্য কিছু করতে পারবেন বলে তার বিশ্বাস।

মাসুরা আরো বলেন, সাতক্ষীরায় ফুটবলসহ বিভিন্ন খেলায় মেয়েদের অনেক প্রতিভা রয়েছে। তাদের মাঠ ও নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। তাহলে এখনকার মত অবস্থা আর থাকবে না। সবশ্রেণী পেশার বাবা- মা তাদের মেয়েদের খেলার মাঠে পাঠাতে আগ্রহী হবেন।

একই অনুষ্ঠানে অনূর্ধ্ব-১৫ ন্যাশনাল টিমের শিক্ষার্থী সুমাইয়া খাতুন চুমকিকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

(আরকে/এসপি/অক্টোবর ০৬, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

০৪ ডিসেম্বর ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test