E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

সুবর্ণচরে আবদুল মালেক উকিলের ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

২০২৩ অক্টোবর ১৮ ১৩:১৩:৩৬
সুবর্ণচরে আবদুল মালেক উকিলের ৩৬তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী : মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর নোয়াখালীর কৃতি সন্তান আবদুল মালেক উকিল এর ৩৬ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল, আলোচনা সভা ও মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামিলীগ।

সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ চৌধুরীর সঞ্চালনায় এবং সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আব্দুল মালেক উকিল এর কনিষ্ঠ পুত্র বাহার উদ্দিন খেলন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সুবর্ণচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এএইচএম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শিহাব উদ্দিন শাহীন, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল মালেক উকিল এর জ্যেষ্ঠ সন্তান গোলাম মহিউদ্দিন লাতু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন চৌধুরী বাহার, জেলা আওয়ামিলীগের সদস্য ডাক্তার আব্দুর রব, চরক্লার্ক চেয়ারম্যান আবু্ল বাসার ডিপটি।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ইকবাল মাহমুদ সোহেল, আওয়ামিলীগ নেতা তাজউদ্দিন বাবর, ওমর ফারুক বিপ্লব, কামরুল হোসেন টুটুল, বশির আহমেদ, হানিফ কেশিয়ার, পারভেজ মেম্বার, বেলাল হোসেন, এডভোকেট জসিম উদ্দিন, তারেক আজিজ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নোয়াখালী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বলেন,আবদুল মালেক উকিল নোয়াখালী জেলার অনেক জাতীয় ও জনগুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন করেছে যেকারণে তাঁকে প্রজন্নের পর প্রজন্ন আজীবন স্বরণ রাখবে।দক্ষিনাঞ্চল এর মানুষের সাথে উনার এতো নিবিড় সম্পর্ক ছিল যে, এখানকার স্থানীয় মানুষদের জন্য তিনি নোয়াখালী ২৫০ শয্য বিশিষ্ট সরকারি হসপিটাল নির্মান,নোয়াখালী পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার, চরজব্বর পুলিশ পাড়ি,চরজব্বর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মান,দক্ষিন অঞ্চল উপকূলীয় মানুষের জন্য বেড়ি বাঁধ নির্মাণ সোনাপুর থেকে আটকোপালিয়া পযর্ন্ত বিদুৎ,চরক্লাক ইউনিয়নে গুচ্ছ গ্রামের মাধ্যমে ৮০০ ভূমিহীন পরিবারকে দুই একর করে জমি প্রদান করেন যেখানে প্রজেক্ট চেয়ারম্যান আমি ছিলাম।এই সকল সামগ্রিক উন্নয়নের কারণে জনপ্রিয় লোক হিসেব নোয়াখালী সদর ৪ আসনে মূত্যুর পূর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত জাতীয় সংসদের সদস্য ও বিরোধী দলীয় উপনেতা ছিলেন। একজন নির্লোভ, নিরহংকারী ব্যাক্তিত্ববান রাজনীতিবিদ হিসাবে সারা বাংলাদেশে সুপরিচিত ছিলেন।

তিনি আরো বলেন,নোয়াখালী ৪ সদর-সুবর্ণচর আসনে আবদুল মালেক উকিল এর আগে পরে সবাই রোহিঙ্গা (অন্য এলাকার) হিসেবে এসে এখানে এমপি নির্বাচিত হতো।তিনি একমাত্র স্থানীয় ব্যক্তি হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়।আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও রোহিঙ্গাদের বিতাড়িত করে আব্দুল মালেক উকিলের মত স্থানীয়দের পক্ষ হয়ে নৌকার জন্য কাজ করবেন? এমন প্রশ্নের জবাবে উপস্থিত সকলে উচ্চস্বরে সম্মতি জানায়।পরিশেষে বাহার উদ্দিন খেলন এর খামার বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজে অনেকে অংশ নেন।

আব্দুল মালেক উকিল ১৯২৪ সালের ১ অক্টোবর নোয়াখালী সদর উপজেলার রাজাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।যিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দু:সময়ের সভাপতি, বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রীপরিষদের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রী হিসেবে স্বরাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করে। এছাড়াও বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সাবেক স্পিকার ছিলেন। ১৭ অক্টোবর ১৯৮৭ সালে তিনি মৃত্যু বরণ করেন।

(আইইউএস/এএস/অক্টোবর ১৮, ২০২৩)

পাঠকের মতামত:

২৫ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test