E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

সুবর্ণচরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৪ 

২০২৪ জুন ১২ ১৫:১৬:০১
সুবর্ণচরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৪ 

মোঃ ইমাম উদ্দিন সুমন, সুবর্ণচর : নোয়াখালী সুবর্ণচরে জায়গা জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ জন আহত হয়। হামলায় শক্তি রঞ্জন রায়ের মাথা ফেটে যায়। আহতরা সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঘটনার বিষয়ে ডাক্তার অপু রায় চরজব্বর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ঘটনাটি ঘটে ১২ জুন (বুধবার) সকাল ৭ টায় ৩ নং চরক্লার্ক ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড দক্ষিন চরক্লার্ক গ্রামে ।

আহতরা হলেন, দক্ষিন চরক্লার্ক গ্রামের মৃত হরিপদ রায়ের পুত্র ডাক্তার শক্তি রঞ্জন রায় (৬৫), মৃত অমর কৃষ্ণ রায়ের পুত্র উজ্জ্বল চন্দ্র শীল(৪০), কান্তি লাল রায়ের পুত্র ডাক্তার অপু রায়, কান্তি লাল রায়ের স্ত্রী স্বপ্না বালা শীল।

লিখিত অভিযোগ ও ভুক্তভোগী ডাক্তার অপু রায় বলেন, প্রতিবেশী বেচারাম শীলের পুত্র বিমল চন্দ্র শীল (৩৫), লিপশ চন্দ্র শীল (৪০) দীর্ঘদিন ধরে আমাদের জায়গা জমি এবং চলাচলের জায়গা দখলে রাখে একাধিকবার সামাজিক বৈঠকের পর স্খানীয় ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার হানিফ সহ এলাকার গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ জায়গা জমি পনিমাপ করে বুঝিয়ে দেয়। কিন্তু বিমলরা সেটা না মেনে আমাদের জায়গা দখলের পায়তারা করে।

উক্ত বিষয়ে পূনরায় হানিফ মেম্বারকে জানানো হলে তিনি আজ জায়গার বিষয়ে পরিদর্শনে আসেন। মুহুর্তেই কিছু বুঝে উঠার আগেই বিমল লিপশ অশ্লিষ গাল মন্ধ করতে থাকেন বাঁধা দিলে তারা দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র দিয়ে আমাদেরকে এলো পাতাড়ি পিটিয়ে আমার মামা শক্তি রঞ্জন রায়ের মাথা ফাটিয়ে পেলে, আমার মা স্বপ্না বালাকে, প্রতিবেশী উজ্জ্বল রায় এবং আমাকে মারধর করে। পরে স্থানীয়রা আমাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসেন। সেখান থেকে আমি থানায় গিয়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করি। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।

আহত ভুক্তভোগী শক্তি রঞ্জন রায় বলেন, দীর্ঘদিন বিমল আমাদের জায়গা জমি দখলের চেষ্টা করে, বাঁধা দিলে অকত্য ভাষায় গাল মন্ধ সহ মারধর করতে এগিয়ে আসে তারা সালিশ বিচার কিছু মানেনা, আজকে মেম্বারের উপস্থিতিতে আমাদেরকে হামলা করে আহত করে, আমরা এর সঠিক বিচার চাই।

অভিযুক্ত বিমল চন্দ্র শীল বলেন, শক্তি রঞ্জন আমাদের জায়গা কেটে পেলছিলো, বাঁধা দেয়ায় তারা আমাদের ওপর হামলা করে।

৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ হানিফ বলেন, ডাক্তার শক্তি রঞ্জন রায় এবং বিমলদের মধ্যে জায়গা জমি নিয়ে অনেক আগ থেকে বিরোধ ছিলো, পরে আমরা সবাই যার যার জায়গা তাদেরকে পরিমাপ করে বুঝিয়ে দিয়েছি কিন্তু বিমলরা সেটা না মেনে শক্তি রঞ্জন রায়ের বোনের জায়গায় হাটাচলা করতে অন্যায় ভাবে দখলে নিতে চায়, এক সময় বিমলরা ঐ জায়গা দিয়ে চলাচল করতো কিন্তু পরিমানের পর তারা সেটা পায়নি, পূননায় সে জায়গা তারা দাবী করে আসছিলো।

কয়েকদিন আগে শক্তি রঞ্জন তার বোনের জায়গায় মাটি কাটে এতে বিমলরা বাঁধা দিলে পুনরায় তাদের মধ্যে বিরোধ সৃস্টি হয়।

ঘটনারদিন আবারো সেখানে গেলে আমার সামনে দুপক্ষে কথাকাটাকাটি করার এক পর্যায়ে মারধর শুরু করে তাদের মারধরের মধ্যে আমি ভয়ে রাস্তায় চলে আসি পরে জানতে পারি উভয় পক্ষ আহত হয়।

চরজব্বর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি কাউছার আলম ভূঁইয়া বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(আইইউএস/এএস/জুন ১২, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

১৫ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test