E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

ছোট গরুর চাহিদা বেশি 

শেষ দিনে জমে উঠেছে মৌলভীবাজারের পশুর হাট

২০২৪ জুন ১৬ ১৭:২২:১৪
শেষ দিনে জমে উঠেছে মৌলভীবাজারের পশুর হাট

মোঃ আব্দুল কাইয়ুম, মৌলভীবাজার : কয়েকদিনে থেমে থেমে বৃষ্টি আর বৈরি আবহাওয়ার কারণে জেলার কোরবানির পশুর হাটগুলো জমে উঠেনি। এতে চিন্তার ভাঁজ পড়ে হাটগুলোর ইজারাদার ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের মাঝে। তবে বৃষ্টি উপেক্ষা করে একদম শেষ মুহুর্তে অর্থাৎ শনি ও রবিবার জমতে শুরু করে জেলার কোরবানি ঈদের পশুর হাটগুলো। এতে করে কিছুটাও স্বস্তি পেয়েছেন ইজারাদার ও ক্রেতা-বিক্রেতারা। আর শেষ দিনে পুরোপুরি জমেছে গবাদিপশুর হাটগুলো।

রবিবার (১৬ জুন) দুপুরে জেলা শহরের স্টেডিয়াম প্রাঙ্গণে মৌলভীবাজার পৌরসভা আয়োজিত গবাদিপশুর হাট সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, প্রতি মুহুর্তেই ছোট ছোট পিকআপে করে গরুবাহী ট্রাক প্রবেশ করছে হাটে। পাশাপাশি ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে কুরবানির পশুকে সাজিয়ে অপেক্ষা করছেন খামারী ও মৌসুমী ব্যবসায়ীরা। ক্রেতারাও অপেক্ষায় রয়েছেন পছন্দের গবাদীপশুটি কিভাবে কম মূল্যে কিনে নিতে পারেন। তবে হাটে আসা পশুর মধ্যে ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকার গবাদী পশুর চাহিদা বেশী।

হাটে আসা ব্যবসায়ীরা জানান, গো খাদ্যের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় এবারে লোকশান গুনতে হবে তাদের। এনিয়ে চলছে ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে দর কাষাকষি। পছন্দের গবাদিপশু ক্রয় করতে ভীর করছেন সেখানে। গবাদী পশুর কাছে শুধু ক্রেতারাই ভীর করছেন না, পশুগুলো দেখতে দর্শনার্থীরাও ভীর করছেন, ছবি তুলছেন। কেউবা আবার ফেসবুকে লাইভও করছেন।

বিক্রেতারা জানান, বাজারে গো-খাদ্যের দাম ও শ্রমিক মজুরী কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ায় বেকায়দায় পড়েছেন তারা। কুবানীর হাটে সবচেয়ে বড় পশুর দাম হাকা হচ্ছে সাড়ে ৮ লাখ টাকা। এবছর হাটের আকর্ষণ বাড়িয়েছে শাহীওয়াল জাতের বেশ কিছু গবাদিপশু। এই জাতের একেকটি গরুর দাম হাকা হচ্ছে সাড়ে ৫ লাখ থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে ৮ লাখ পর্যন্ত।

পৌরসভা আয়োজিত হাটের ইজারারদার আব্দুল মতিন জানান, আনুসাঙ্গিক খরছ বাদে ৫৩ লক্ষ টাকায় হাট ইজারা নিয়েছি। এক কিলোমিটার দূরত্বে মাত্র ১৫ হাজার টাকায় আরেকটি হাট ইজারা দিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন। বাজারে যে পরিমান কুরবানির পশু উঠেছে সে অনুুযায়ী ক্রেতার সংখ্যা কম। তাই ক্ষতির সম্মুখিন হওয়ারও আশঙ্কা করছি।

এদিকে গত একসাপ্তাহ থেকে জেলার দীঘিরপাড় বাজার, ব্রাম্মণবাজার, আদমপুরবাজার, সরকারবাজার, ভুনবীরবাজার ও মির্জাপুর সহ অন্যান্য স্থায়ী পশুর হাটে ক্রেতা বিক্রেতাদের উপস্থিতি ছিল লক্ষণীয়। জেলার ৭ উপজেলায় স্থায়ী ২১টি হাট সহ মোট ৩৫টি পশুর হাট বসেছে বলে জানা গেছে।

জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, মৌলভীবাজার জেলায় মোট ৮৪ হাজার ৮শ ১২টি গবাদিপশু কোরবানির জন্য প্রস্তুত রয়েছে। খামার রয়েছে ৫ হাজার ৩শ ৬৯টি। কোরবানির লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ৯৮ হাজার ৫শ ৪২টি গবাদিপশু। আর ঘাটতি রয়েছে ১৪ হাজার ৭শ ৩০টি।

শনিবার বিকালে মৌলভীবাজার পৌরসভা আয়োজিত গবাদিপশুর হাট পরিদর্শনে আসেন জেলা পুলিশ সুপার মা: মনজুর রহমান। হাট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, জেলা পুলিশের পক্ষে হাটগুলোতে পরিকল্পনা অনুযায়ি সবধরণের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মানুষও তাদের পছন্দ মতো গবাদিপশু ক্রয় করছেন।

(একে/এসপি/জুন ১৬, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

২২ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test