E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

পার্বত্যাঞ্চলে খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়নে ইউএসএইড’র স্যাপলিং প্রকল্পের উদ্বোধন

২০১৬ নভেম্বর ০৩ ১৭:১৮:৪০
পার্বত্যাঞ্চলে খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়নে ইউএসএইড’র স্যাপলিং প্রকল্পের উদ্বোধন

বান্দরবান প্রতিনিধি : যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোহগী সংস্থা ইউএসএইড এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অংশিদারিত্বের ভিত্তিত্বে বান্দরবানের দুর্গম ৫টি উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসরত মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান উন্নয়নে “স্যাপলিং” নামে নতুন একটি প্রকল্পের উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বান্দরবান ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টি ইনিষ্টিটিউট হল রুমে ৫ বছর মেয়াদী এই প্রকল্পের শুভ উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম ত্রিপুরা, ইউএসএইড’র মিশন ডিরেক্টর ইয়ানিনা জারুজেলেস্কি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোঃ হারুনর রশিদ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনালের কান্ট্রি ডিরেক্টর মেরিডিথ জ্যাকশন স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

প্রধান অতিথি বীর বাহাদুর এমপি বলেন, স্যাপলিং প্রকল্পটি বান্দরবানে শুরু করা হয়েছে। কিন্তু নিয়োগের ক্ষেত্রে বান্দরবানের শিক্ষিত যুবকদের প্রাধান্য দেয়া হয়নি। যে এলাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে সেই এলাকার শিক্ষিতদের অগ্রাধিকার দেয়া না হলে কাজের অগ্রগতি ও বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে পড়ে। তাই প্রকল্পের শতভাগ বাস্তবায়নের জন্য এই এলাকার শিক্ষিত যুবকদের অগ্রাধিকার দেয়া প্রয়োজন। তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে ইউএনপি’র মতো আন্তর্জাতিক সংস্থা পাহাড়ী মানুষের উন্নয়ন করতে গিয়ে কোটি কোটি টাকা ধ্বংস করেছেন।

এখানকার মানুষের কোন উন্নয়ন বা উন্নতি হয়নি। ফলে পাহাড়ী অঞ্চলে বসবাসরত মানুষ যে তিমিরে ছিল সেই তিমিরে রয়ে গেছে। ইউএসএইড এবং হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনাল যে প্রকল্পটি শুরু করেছে তা এলাকার বাস্তবতার নিরিখে করতে হবে। তবেই এলাকার উন্নয়ন লক্ষ্য করা যাবে। এ ব্যাপারে তিনি প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থার সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

অনুষ্টানে ইউএসএইড’র মিশন ডিরেক্টর ইয়ানিনা জারুজেলেস্কি জানান, পাহাড়ী জাতিস্বত্তার পাশাপাশি বসবাসরত বাঙ্গালী সম্প্রদায়ও সমতার ভিত্তিত্বে এই প্রকল্পের সুবিধাভোগী হবে। ৫ বছরের জন্য এটি পাইলট প্রকল্প হিসেবে ৫ বছরের জন্য বান্দরবানের দুর্গম ৫ উপজেলায় স্যাপলিং প্রকল্পটি খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টিমান উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন, স্বাস্থ্য সেবা ও মানুষের জীবনমান উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

এ সময় ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টির হলরুম প্রাঙ্গনে ডিসপ্লে’র মাধ্যমে ১১টি ক্ষুদ্র নৃ গোষ্টি ও বাঙ্গালীদের সংস্কৃতি তুলে ধরা হয়।

(এএফবি/এএস/নভেম্বর ০৩, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

০১ আগস্ট ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test