E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

'কাজ করি বলেই আমাকে নির্বাচিত করা হয়'

২০২২ জুলাই ০৩ ০০:৫৮:৩৮
'কাজ করি বলেই আমাকে নির্বাচিত করা হয়'

স্পোর্টস ডেস্ক : টানা চারবার সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন। চারবারই তিনি সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়।

শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে সাফের কংগ্রেসে চতুর্থবারের মতো সভাপতি নির্বাচিত হয়ে কাজী মো. সালাউদ্দিন বলেছেন, ‘এই মেয়াদে তিনি সাফের টুর্নামেন্টগুলোর সঙ্গে যোগ করবেন সাফ ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ। নতুন এই টুর্নামেন্ট দেখা যেতে পারে আগামী বছরই।’

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোয় আরো ফুটবল সংগঠক থাকতে বারবার কেন কাজী সালাউদ্দিনই সাফের সভাপতি হন এবং কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছাড়ই। কেউ কি এই দায়িত্ব নিতে চান না? নাকি কাজী সালাউদ্দিনের কাজের মূল্যায়ন করেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়?

চতুর্থবার সভাপতি নির্বাতি হওয়ার পর এই প্রশ্ন করা হয়েছিল তাকে। কাজী মো. সালাউদ্দিন জবাবে বলেছেন, 'আমি বলব গত কয়েক বছর বেশ সাকসেসফুল ছিল। আমার কথা যদি বলেন, আমি যখন প্রথম দায়িত্ব নিয়েছিলাম তখন একটি মাত্র টুর্নামেন্ট হতো। এখন এক টুর্নামেন্ট থেকে সাত টুর্নামেন্ট। প্রতি বছর ছয়টি করে টুর্নামেন্ট, আমার মনে হয় এক বছরে এর চেয়ে বেশি করা সম্ভব নয়। এগুলো গত কয়েক বছরেই হয়েছে। ছেলেদের বলেন, মেয়েদের বলেন, বয়সভিত্তিক বলেন, গত কয়েক বছরে এসব টুর্নামেন্ট হয়েছে। আমি বিশ্বাস করি, কাজ করি বলেই আমাকে নির্বাচিত করা হয়েছে।’

এখন সাফের কার্যক্রম অনেক বেশি উল্লেখ করে কাজী মো. সালাউদ্দিন বলেছেন, 'এখন প্রতি বছর ৫ থেকে ৬টা টুর্নামেন্ট হয়। এটাই বলে দেয় সাকসেস কতখানি। ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপটা এখন বাকি। চমকের কিছু নেই, আমার দরকার রিয়েলিটি। রিয়েলিটিতে ৬টা হচ্ছে, আরেকটা যোগ হবে। এছাড়া আর কোনো স্পেস নাই অন্য কিছু যোগ করার।’

বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের সঙ্গে দক্ষিণ এশিয়ার ফুটবলের পার্থক্যটা কী? সাফ সভাপতি বলেছেন, 'আমাদের যে ৭টা দেশ আছে তারা বিশ্বের সবচেয়ে দরিদ্র দেশের কয়েকটি। আমাদের মধ্যে ফুটবলের দিক থেকে ধনী কেবল ভারত। ভারতে এখন বয়সভিত্তিক বিশ্বকাপ হচ্ছে। তারা অংশগ্রহণ করছে। একসঙ্গে উন্নতি করা সম্ভব না। একটা একটা করে টেনে তুলতে হয়। একসঙ্গে তো সাতটা দেশ উঠবে না। সেই দিক থেকে এটা ইতিবাচক। ভারত তো আগে কখনো বিশ্বকাপ খেলতে পারে নাই। আগে স্বাগতিক হতে পারে নাই। বিশ্বের এই প্রান্তে বয়সভিত্তিক বিশ্বকাপ হচ্ছে, আমাদের জন্য এটা অনেক অনেক বড় অর্জন।'

(ওএস/এএস/জুলাই ০৩, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

০৯ আগস্ট ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test