E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

সৈয়দপুরের দরিদ্র পরিবারের মেধাবী ছাত্রী

মেডিকেল কলেজে ভর্তির অনিশ্চয়তা দূর হল রিনার

২০১৬ অক্টোবর ১৮ ১২:১৯:১০
মেডিকেল কলেজে ভর্তির অনিশ্চয়তা দূর হল রিনার

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি :নীলফামারীর সৈয়দপুরের অদম্য মেধাবী আইরিন আক্তার রিনার মেডিকেল কলেজে ভর্তির অনিশ্চয়তা দূর হয়েছে। তাঁর মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ।

অনলাইনে 'অর্থাভাবে আইরিনের মেডিকেলে ভর্তি অনিশ্চিত’ শিরোনামে প্রথম খবরটি প্রকাশিত হলে নজরে আসে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবু ছালেহ মো. মুসা জঙ্গীর। তিনি সংবাদকর্মীসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ওই মেধাবী শিক্ষার্থীর ব্যাপারে সার্বিক খোঁজখবর নেন। সেই সঙ্গে তিনি তাৎক্ষণিক বিষয়টি নিয়ে সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আজমল হোসেনের সঙ্গেও কথা বলেন।

সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান মো. আজমল হোসেন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আবু ছালেহ মো. মুসা জঙ্গী মেধাবী ছাত্রী রিনাদের উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের কিসামত কামারপুকুর মিস্ত্রীপাড়ার বাড়িতে ছুটে যান। সেখানে গিয়ে তারা প্রথমে মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষায় ভাল ফলাফলের জন্য মেধাবী রিনা ও তাঁর পরিবারের সদস্য আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে অদম্য রিনাকে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন।

প্রসঙ্গত, উপজেলা কামারপুকুর ইউনিয়নের কিসামত কামারপুকুর মিস্ত্রীপাড়ার ইউনুস আলী ও মোছা. বেলী বেগম দম্পতির মেয়ে আইরিন আক্তার রিনা। রিনার বাবা পেশায় একজন দিনমজুর। সৈয়দপুর সরকারি কারিগরি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয় সে (রিনা)। আর সে মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু অভাবী পরিবারের মেয়ে আইরিন আক্তার রিনা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেলেও অর্থাভাবে তার ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল।








(ওএস/এস/অক্টোবর ১৮, ২০১৬)

পাঠকের মতামত:

১৮ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test