E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

সোহাগের লেখায় দ্বৈত কণ্ঠ দিলেন হোমায়রা বশীর ও রাজা বশীর

২০২২ মে ১৮ ১৭:১৩:৫৯
সোহাগের লেখায় দ্বৈত কণ্ঠ দিলেন হোমায়রা বশীর ও রাজা বশীর

আবু নাসের হুসাইন, সালথা : সোহাগ রেজার লেখা আধুনিক মৌলিক গানে যুগলে কণ্ঠ দিলেন প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী বশীর আহমেদের  দুই সন্তান হোমায়রা বশীর ও রাজা বশীর। জনপ্রিয় এই শিল্পী দ্বয়ের মাতা মীনা বশীরও ছিলেন অত্যন্ত জনপ্রিয় একজন শিল্পী! 

একটি সুন্দর কবিতা, একটি সুরেলা গান, ঢেকে থাকা জীবনের, মান অভিমান! এমনই কথামালায়-এই মৌলিক গানটি সম্প্রতি বাংলাদেশ বেতার ঢাকা কেন্দ্র থেকে রেকর্ড করা হয়। গানটির সুর ও সঙ্গীত আয়োজন করেছেন রাজা বশীর!

রোমান্টিক ধাঁচের এই গানটি প্রযোজনা করেছেন উপ-পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, সার্বিক নির্দেশনায় ছিলেন পরিচালক- কামাল আহমেদ।

এর আগে সোহাগের লেখা, ‘মনেরও আড়ালে তুমি রেখনা চাওয়া’- গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন শিল্পী সামিনা চৌধুরী, ‘খোলা চুলে আনমনে খোলা জানালায়’ গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন শিল্পী আগুন। `ভালবাসি এসো দেশটাকে প্রিয় মাতৃভূমি তোমায়' গানটিতে কন্ঠ দিয়েছেন শিল্পী ফাতেমা তুজ জোহরা এ গানগুলোর সুর ও সঙ্গীত আয়োজন করেন আলমগীর হায়াত রুম্মন।

এছাড়া সোহাগের লেখা ‘আমিতো ভাবিনি ভাবতে পারিনি’ গানটি গেয়েছেন শিল্পী শাহনাজ রহমান স্বীকৃতি, সুর ও সঙ্গীত আয়োজন করেছেন উজ্জ্বল সিনহা। ‘আমি যা চেয়েছি তুমি-তা চাওনি’ গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন শিল্পী আফসানা রুনা, সুর করেছেন সজল দাস, ‘এখনি সময় চল করি এই পণ’ গানটি গেয়েছেন শিল্পী রন্টি দাস ও বাবু সরকার, আর সুরারোপ করেছেন কাজী দেলোয়ার হোসেন। এই গানগুলো বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করে।

গানটির জনপ্রিয়তার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে গীতিকার মো. তাজুল ইসলাম সোহাগ বলেন, স্মৃতি, ভালবাসা, প্রেম-বিরহ ও রোমান্টিক মুহূর্তেকে যারা উপভোগ করতে পছন্দ করেন সে সকল শ্রেণির শ্রোতার কথা মাথায় রেখেই গানটির কথাগুলো সাজানো হয়েছে। বিশেষ করে স্যাড-রোমান্টিক ধাঁচের গান যারা পছন্দ করেন এ গানটি তাদের জন্য !

সোহাগের লেখায় বা কথা মালায় উঠে আসে সকল সুন্দর সৃষ্টির প্রতি প্রগাঢ় প্রেম- ভালবাসা! সকল মহানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা! সোহাগের সৃষ্টিতে যেন বাস্তবতায় নিরিখে নির্মিত কাল্পনিকের প্রতিচ্ছবি ভেসে উঠে । তার লেখনিতে হৃদয়ের গহীনে মুগ্ধতার পরশ বুলিয়ে যায়- এমনটাই মনে করেন শ্রোতারা।

গানটির জনপ্রিয়তার ব্যাপারে আশাবাদী সোহাগ বলেন, ‘যেহেতু আমাদের সবার জীবনেই কম-বেশি দুঃখ-বেদনা, হাসি-কান্না, স্মৃতি-কাতরতা আছে এবং আগামিতেও থাকবে, এটা অস্বীকার করার কোন উপায় নেই! এসব মেনে নিয়েই জীবন-যাপিত হয়, আর এসবের কারনেই মনের কোনে রচিত হয় কবিতা-গান কিংবা গল্প! কখন তা কারো-কারো লেখনিতে প্রকাশ পায় অথবা কারও মনের অন্তরালে ঢাকা থেকে যায়!

উক্ত গানটির সুরকার ও শিল্পী রাজা বশীর! এই গানটির ব্যাপারে অভিমত ব্যাক্ত করতে গিয়ে রাজা বশীর জানান এ পর্যন্ত অনেকের লিরিক নিয়ে কাজ করেছি কিন্ত সোহাগ ভাইয়ের লেখা এমন মিষ্টি একটি লিরিক্স নিয়ে কাজ করতে গিয়ে মনে হয়েছে এমন সুন্দর অনুভূতির ছোঁয়া ও মায়া জড়ানো গানে এই প্রথম কাজ করছি! তাই এমন মিষ্টি ও দারুন লিরিক্সটি দৃষ্টিগোচর হওয়া মাত্র আমি সেটা লুফে নেই!

হোমায়রা বশীর জানান, যেহেতু রাজা আবারও দেশের বাহিরে চলে যাচ্ছে তাই অনেক জমে থাকা কাজগুলো দ্রুত শেষ করার তাড়া থাকলেও কাজের মান অক্ষুণ্ণ থাকবে বলে আমার শতভাগ বিশ্বাস আছে! গানটি আমাদের দুই ভাই-বোনের দ্বৈত কন্ঠে শুনতে পাবেন! তিনি আরও বলেন সত্যি আমি ও আমার স্নেহের ভাই রাজা গানটি একত্রে করতে পেরে দু'জনই তৃপ্ত ও আশাবাদী! আশাকরি শ্রোতারা এই গানের কথা, সুর, ছন্দ এবং গায়কির যাদুতে বিমোহিত ও তৃপ্ত হবেন!

গীতিকার মো. তাজুল ইসলাম সোহাগ ১৯৮১ ইং সালে ফরিদপুরের সালথা উপজেলার যদুনন্দী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. বেলায়েত হোসেন, মাতা কোহিনুর বেগম। চার ভাই-বোনের মধ্যে সোহাগ মেঝ। বর্তমানে তিনি একটি সরকারি চাকরির পাশা-পাশি সময়ের অবসরে একটি বেসরকারী টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার ঢাকা কেন্দ্রে সংবাদ উপস্থাপনা ও অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করে থাকেন।

(এন/এসপি/মে ১৮, ২০২২)

পাঠকের মতামত:

২৫ জুন ২০২২

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test