E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Transcom Foods Limited
Mobile Version

শিরোনাম:

বেরোবিতে চাকরি দেয়ার নামে ১৩ লাখ টাকা লেনদেনের ভিডিও ভাইরাল, তদন্ত কমিটি গঠন

২০২১ ফেব্রুয়ারি ২৪ ১৭:১৬:০৭
বেরোবিতে চাকরি দেয়ার নামে ১৩ লাখ টাকা লেনদেনের ভিডিও ভাইরাল, তদন্ত কমিটি গঠন

মানিক সরকার মানিক, রংপুর : ভুয়া নিয়োগ দিয়ে ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন কর্মকর্তা-কর্মচারির বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার বরাবর ভুক্তভোগির করা লিখিত অভিযোগপত্রের কপি এবং টাকা লেনদেনের একটি ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তাতে স্পষ্ট দেখা যায়, নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে সংশ্লিষ্টরা টাকা লেনদেন করছেন। তবে ভিডিওটি কবে ধারণ করা হয়েছে তা জানা যায়নি। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যলয় কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার বিকালে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। 

অভিযুক্ত তিন ব্যক্তি হলেন, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সেকশন অফিসার মনিরুজ্জামান পলাশ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হলের কম্পিউটার অপারেটর শেরে জামান সম্রাট এবং মাষ্টার রোল কর্মচারি গুলশান আহমেদ শাওন। তবে এদের বিরুদ্ধে এখনও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

অভিযোগে জানা যায়, রংপুরের মিঠাপুকুরের বাসিন্দা রুবেল সাদীকে সেকশন অফিসার-২ পদে চাকরি দেয়ার কথা বলে ১৬ লাখ টাকার চুক্তি করেন ওই তিন কর্মকর্তা-কর্মচারি। চুক্তি অনুযায়ি ৩ ধাপে ১৩ লাখ টাকা আদায় করেন তারা। আর বাকী টাকা যোগদানের সময় পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু টাকা নেয়ার পর চাকরি দিতে টালবাহনা শুরু করেন তারা। এক পর্যায়ে চাকরি প্রত্যাশি রুবেলকে ভুয়া একটি নিয়োগপত্র দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদানের জন্য বলা হয়।

এদিকে নিয়োগপত্র নিয়ে রুবেল যোগদানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে গেলে কর্তৃপক্ষ তাকে জানিয়ে দেয় এটি ভুয়া নিয়োগপত্র। এ অবস্থায় রুবেল ওই তিন ব্যক্তির কাছে টাকা ফেরত চাইলে তারা রুবেলকে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখায়। এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাদের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান হলের প্রভোষ্ট তাবিউর রহমান প্রধান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, তাদের বিরুদ্ধে এর আগেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। তখন তাদেও মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়েছিল। এবার যেহেতু প্রমাণসহ অভিযোগ পাওয়া গেছে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে উপাচার্য প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ বিএনসিসি’র নির্দেশে মঙ্গলবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসানকে বিষয়টির তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেজিষ্ট্রার কর্ণেল (অব) আবু হেনা মুস্তফা কামাল।

(এম/এসপি/ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

২৩ এপ্রিল ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test