E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

কোটচাঁদপুরে পান চাষে সাফল্যের হাতছানি

২০২১ জুন ০১ ১৮:১৮:৫০
কোটচাঁদপুরে পান চাষে সাফল্যের হাতছানি

অরিত্র কুণ্ডু, ঝিনাইদহ : চোখ জুড়ানো পানের বরজ ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলার গ্রামে গ্রামে। সাফদারপুর, মানিকদিহি, দুতিয়ারকুটি, জালালপুর, ছয়খাদা, শ্রীরামপুর পানের বরজের সমারোহ।

মানিকদিহি গ্রামের পানচাষী খোদাবকস বলেন, গত কয়েক বছর সংসারে চরম অভাব আর টানাপোড়নের মধ্যে জীবনযাপন করেছি। গত ২০১৫ সালের শেষের দিকে পাশের গ্রামের পানচাষী মইদুল ইসলামের সাথে সংসারের অভাবের গল্পের একপর্যায়ে তিনি আামাকে পানচাষে উৎসাহিত করেন।

তিনি আরো বলেন, প্রথম বছরে আমি দুতিয়ার কুটি সহ বিভিন্ন গ্রাম হতে চেয়ে ১ বিঘা উঁচু জমিতে পানের বরজ করি। বাঁশ, খুটি, পাটকাঠি, দড়ি, সুতা ইত্যাদি সংগ্রহ করার পর আমি কিছু টাকা হাওলাদ করে পানের বরজ শুরু করলাম।

এক বছরের মাথায় খরচের টাকা উঠে প্রায় অতিরিক্ত ৩০-৪০ হাজার টাকা লাভের মুখ দেখলাম। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে আর ও ২ বিঘা জমিতে পানের বরজ করলাম। আার পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। আামার সংসারে এখন কোন অভাব নেই। দুতিয়ারকুটি পানচাষীদের মধ্যে তরিকুল জানান তাঁর প্রতিবছরে খরচবাদে প্রতি বিঘা জমিতে পানে বরজ হতে দেড় থেকে দুই লাখ টাকা আয় হয়।পানের বরজ প্রতি বিঘা জমিতে প্রথম বছর প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার খরচ হয়। সেক্ষেত্রে পানে চাষে প্রতি বিঘা জমিতে আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে ২ লাখ টাকা আয় হয়। পানের বরজ এর সুবিধা হচ্ছে প্রথম বছরে খরচ তারপরে একটানা ওই বরজ হতে ১০/১২ বছর আয় হয়।

পানচাষ করে কোটচাঁদপুর উপজেলার সহিদুল, আব্দুল খালেক, আব্দুর রউফ , হাসান, বাবু রায়, কার্তিক সহ অনেকেই আলোর মুখ দেখেছেন। কোটচাঁদপুরের পান স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা সহ দেশে বিদেশে এই পান বিক্রয় হচ্ছে। পানচাষীরা তাদের ক্ষেত হতেই পান বিক্রয় করছেন পান ব্যবসায়ীদের নিকটে। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়াই চাষীরা এই সুবিধা পাচ্ছেন।

রাইপুর গ্রামের সুবাল চন্দ্র বলেন,সরকারী ভাবে কমমূল্যে কৃষি ঋনের সুব্যবস্থা করা হলে কোটচাঁদপুর উপজেলায় পানচাষে বিপ্লব হবে।

কৃষি অফিস সূত্রে জনা যায়, উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে প্রায় শতাধিক হেক্টর জমিতে পানের চাষাবাদ হচ্ছে। কৃষি বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা পানচাষীদের নিয়মিত দেখভাল আর পরামর্শ প্রদান করায় চাষীরা সাফাল্যের মুখ দেখছে।

জালালপুরের পানচাষী শফিকুল ইসলাম বলেন, এ বছর কোটচাঁদপুরে পানের বরজ হতে পানচাষীদের পান চাষে বাম্পার ফলন হবে। তবে কোটচাঁদপুরে গতবছরের আম্ফানে পানের বরজের ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আকস্মিক আগুনে ব্যপক ক্ষতি হয়েছে। তিনি বলেন, স্বল্পমূল্যে পান চাষীদের ঋণ দেওয়া হলে তারা আবারও ঘুড়ে দাঁড়াবে।

(একে/এসপি/জুন ০১, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

২০ জুন ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test