Occasion Banner
E Paper Of Daily Bangla 71
Janata Bank Limited
Technomedia Limited
Mobile Version

আমন রোপনে ব্যস্ত ঠাকুরগাঁওয়ের কৃষকরা 

২০২১ জুলাই ১৮ ১৬:১৪:৩৩
আমন রোপনে ব্যস্ত ঠাকুরগাঁওয়ের কৃষকরা 

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : দেশের উত্তরের কৃষি স্বনির্ভর জেলা ঠাকুরগাঁও। করোনার দুর্যোগের মাঝেও বোরোর পর আমন রোপন নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন জেলার কৃষকেরা। কেউ বোরোর চারা তুলছেন আবার কেউ সে চারা রোপন করছেন। সবকিছু মিলিয়ে একই চিত্রের দেখা মেলে জেলার প্রতিটি উপজেলা ও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নারগুন, বেগুনবাড়ি, খোঁচাবাড়ি, দানারহাট, বরুনাগাঁও ও রানিশংকৈল,পীরগঞ্জ, হরিপুর উপজেলা সহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় আমনের চারা উঠানো ও রোপন করার দৃশ্য। এতে দল বেঁধে শ্রমিকেরা কোথাও আমনের চারা তুলছেন, আবার কোথায় চারা রোপন করছেন। এদের মধ্যে নারী শ্রমিকদের চারা তুলে রোপনের দৃশ্য চোখে পড়ে বেশ কয়েক জায়গায়। জনপ্রিয় বেশ কয়েকটি জাতের ধান আবাদ করা হবে বলে জানান কৃষকেরা।

সদর উপজেলার দানারহাট এলাকার কৃষক মইনুল ইসলাম জানান, প্রত্যেক বছরের মত এ বছরও তিনি ৪ একর (৪শ শতক) জমিতে আমন লাগানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইতিমধ্যে চারা রোপনের জন্য প্রস্তুত হয়েছে। শ্রমিক নিয়োগ করে যে কোন দিন চারা রোপন করবেন তিনি ।

সদর উপজেলার মাদারগঞ্জ এলাকার কৃষক জলিল জানান, তিনি এ বছর আড়াই একর (২শ ৫০ শতক) জমিতে আমন ধান লাগানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। ইতিমধ্যে বিভিন্ন এলাকা থেকে চারা জোগাড় করেছেন এবং তা রোপনও শুরু করেছেন। গত বছর শুরুর দিকে দাম কম পাওয়া গেলেও এ বছর ভাল দাম পাওয়ার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এ বছর জেলায় ১ লাখ ৩৭ হাজার ২৫ হেক্টর জমিতে আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৪শ ৫০ মেট্রিক টন। ইতিমধ্যে কৃষকেরা জেলায় মোট ২৬০ হেক্টর জমিতে চারা রোপন করেছেন।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ আবু হোসেন জানান, ঠাকুরগাঁও জেলা অন্যান্য ফসলের ন্যয় ধানের জন্যও বিখ্যাত। প্রচুর পরিমানে ধান এ জেলায় উৎপাদন হয়। প্রত্যেক বছর আমন মৌসুমে কৃষকদের যাবতীয় পরামর্শ ও সেবা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে প্রদান করা হয়। এ বছরও দেওয়া হয়েছে। যদিও করোনা পরিস্থিতিতে বাজারের কিছুটা সমস্যা রয়েছে, পরিস্থিতি একটু ভাল হলেই লক্ষ্যমাত্রার অতিরিক্ত ধান উৎপাদন হবে এবং কৃষকেরা এ বছরও ধানের ন্যর্য্য মুল্য পাবেন বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

(আই/এসপি/জুলাই ১৮, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

৩১ জুলাই ২০২১

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test