E Paper Of Daily Bangla 71
World Vision
Walton New
Mobile Version

ছাগলকাণ্ড নিয়ে যা বললেন এনবিআর চেয়ারম্যান

২০২৪ জুন ২০ ১৭:৫৫:৩৫
ছাগলকাণ্ড নিয়ে যা বললেন এনবিআর চেয়ারম্যান

স্টাফ রিপোর্টার : গণমাধ্যমে ১৫ লাখ টাকায় একটি কোরবানির ছাগল বিক্রি নিয়ে নাম আসে ইফাত নামের এক তরুণের। ১৫ লাখ টাকার সে ছাগল ১২ লাখ টাকায় কেনা ইফাত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মতিউর রহমানের ছেলে। প্রশ্ন উঠে একজন রাজস্ব কর্মকর্তার ছেলে কীভাবে এতো টাকা দিয়ে ছাগল কিনতে পারেন।

দেশজুড়ে যখন এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে তখন ১৫ লাখ টাকা দিয়ে ছাগল কেনা মুশফিকুর রহমান ইফাতকে নিজের ছেলে নয় বলে দাবি করেছেন এনবিআর এর কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনাল প্রেসিডেন্ট ড. মো. মতিউর রহমান।

এ নিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা রহমাতুল মুনিমকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এটা কোনো প্রশ্ন নয়। এটা নিয়ে কোনো প্রশ্নের জবাব দেব না।’

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) রাজধানীতে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ভবনে বাংলাদেশের বাণিজ্য নীতির বিবর্তন, বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ নির্দেশনা নিয়ে এক সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

সেমিনারে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের দেশে পাট ছাড়া আর কোনো কাঁচামাল নেই, যেটা আমরা রপ্তানি করতে পারি। যার কারণে সব কাঁচামাল আমাদের আমদানি করতে হয়। এ কাঁচামাল আমদানি করতে হলে আমাদের অন্য কিছু রপ্তানি করতে হবে। আমরা কাঁচামাল আমদানি করে পণ্য তৈরি করে সেগুলো রপ্তানি করি। এর জন্য আমাদের উৎপাদনকারী শিল্প রয়েছে। এ উৎপাদনকারী শিল্পকে এনবিআর এবং সরকার নানাভাবে সাপোর্ট দিচ্ছে।

তিনি বলেন, এনবিআর কয়েক বছর ধরে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ কনসেপ্টটি লালন করছে। এটি দুইভাবে হতে পারে। একটি, আমরা আমাদের অভ্যন্তরীণ চাহিদার কিছুই বাইরে থেকে আমদানি করবো না। পুরোটাই যেন আমাদের দেশে উৎপাদন হয়, সেদিকে আমাদের দৃষ্টি। যখনই আমরা আমাদের দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা পূরণ করে ফেলবো, তখন অটোমেটিক রপ্তানি হবে। তাই আমরা প্রথমে মার্কেট থেকে সব বিদেশি পণ্য বিদায় করতে চাই। অর্থনৈতিক এ প্রক্রিয়ার মধ্যে রপ্তানির জায়গা তৈরি হয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের বাইরের মার্কেটে যেতে হলে নিজেদের সক্ষমতা তৈরি করতে হবে। সেই সক্ষমতা তৈরির যদি তাগিদ তৈরি না হয়, তাহলে আমরা বাইরের মার্কেটে যেতে পারবো না। যারা পণ্য উৎপাদন করেন, তাদের এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। তাদের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ নিতে হবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, কাস্টমস থেকে রাজস্ব আয় হোক, সেটা আমরা আশা করতে পারি না। কারণ কাস্টমসের রাজস্ব আয় ধীরে ধীরে কমবে। কারণ আমাদের কাঁচামাল ও মেশিন আমদানিতে সাপোর্ট দিতে হবে, আবার পণ্য রপ্তানির সময় আমাদের আবার সাপোর্ট দিতে হবে। যত আমরা উন্নয়নশীল দেশ হবো, তত আমাদের কাস্টমস সাপোর্টের জায়গাটা বাড়বে এবং কাস্টমসের আয়ও কমে আসবে। এটা মাথায় রেখেই এনবিআর কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, লেদারে আমরা (এনবিআর) অনেকদিন ধরে সাপোর্ট দিয়ে যাচ্ছি। তারপরও লেদার যেভাবে এক্সপোর্ট মার্কেট দখল করার কথা, সেভাবে পারছে না। এখানে মূল সমস্যা কমপ্লায়েন্স ইস্যু।

(ওএস/এসপি/জুন ২০, ২০২৪)

পাঠকের মতামত:

১৪ জুলাই ২০২৪

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে
Website Security Test